ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪ , ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ময়মনসিংহে দিনে ২০টি বিবাহ বিচ্ছেদ

বাংলার জমিন ডেস্ক :
আপলোড সময় : ১৪-০৪-২০২৪ ০৩:৫৮:০৮ অপরাহ্ন
আপডেট সময় : ১৪-০৪-২০২৪ ০৩:৫৮:০৮ অপরাহ্ন
ময়মনসিংহে দিনে ২০টি বিবাহ বিচ্ছেদ ফাইল ছবি
শিক্ষা-সংস্কৃতির নগরী ময়মনসিংহে বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদের সংখ্যা। গত বছর জেলায় দৈনিক গড়ে বিয়ে হয়েছে ৫৭টি করে আর বিচ্ছেদ ঘটেছে ২০টি করে। ২০২২ সালে বিয়ের তুলনায় বিচ্ছেদ কিছুটা কম ছিল। বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক, অল্প বয়সে বিয়ে, তথ্য প্রযুক্তির অবাধ প্রবাহ, প্রবাসজীবনকে বিবাহ বিচ্ছেদের মূল কারণ হিসেবে উল্লেখ করে তা রোধে পারিবারিক মূল্যবোধ বৃদ্ধির কথা বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

২৩৬ বছরের পুরনো ময়মনসিংহ জেলায় প্রায় ৬০ লাখ লোকের বসবাস। জেলা সাব-রেজিস্ট্রারের তথ্যমতে, এ জেলায় ২০২৩ সালে বিয়ে হয়েছে ২০ হাজার ৮০৫টি, এর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটেছে ৭ হাজার ৩০০টি। দৈনিক গড়ে ৫৭ বিয়ে এবং ২০টির মতো বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে। শতকরা হিসেবে বিচ্ছেদের পরিমাণ প্রায় ৩৩ শতাংশ।

২০২২ সালে ২০ হাজার ২১৩টি বিয়ের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটেছে ৬ হাজার ৩৯০টি। দৈনিক গড়ে ৫৬ বিয়ে এবং ১৮টির মতো বিচ্ছেদ হয়েছে। ২০২১ সালে ১৯ হাজার ৯৩৩টি বিয়ের মধ্যে বিচ্ছেদ হয় ৫ হাজার ৯১১টি। ২০২০ সালে ২১ হাজার ৮টি বিয়ের বিপরীতে বিচ্ছেদ ঘটে ৫ হাজার ৫৩২টি।

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ জজকোর্টের আইনজীবী নাহরিন সুলতানা নীলা বলেন, সন্দেহ ও সমন্বয়হীনতার কারণে প্রতিনিয়ত বিবাহ বিচ্ছেদ বাড়ছে। বিচ্ছেদ রোধে সচেতনতা বৃদ্ধি প্রয়োজন।

শিক্ষা-সংস্কৃতির নগরী ময়মনসিংহে বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদের সংখ্যা। ছবি: ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনশিক্ষা-সংস্কৃতির নগরী ময়মনসিংহে বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদের সংখ্যা। ছবি: ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন
ময়মনসিংহ মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক নাজনীন সুলতানা বলেন, পারিবারিক বন্ধনে দূরত্ব, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার এবং বহু বিবাহের কারণে বিচ্ছেদ বাড়ছে।

জেলা পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞা বলেন, 'বিবাহ বিচ্ছেদে অনেকগুলো কারণের মধ্যে আমার কাছে যেটা মনে হয় মানুষের মূল্যবোধ বা নৈতিকতার অবক্ষয় ঘটছে। আরেকটা কারণ যেটা আমার কাছে মনে হয়, ময়মনসিংহ জেলা একটি প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা। অনেক প্রবাসী আছেন যারা ৪-৫ বছরেও দেশে আসতে পারেন না। তাঁরা তাঁদের পরিবার বা সংসার এখানে রেখে যান। দীর্ঘ সময় স্বামী-স্ত্রীর একটা যোগাযোগ থাকে না। এই দূরত্বের সময়টাতে অনেকে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। আমরা দেখতে পাচ্ছি এরকম ঘটনা ঘটছে।'

ওসি আরও বলেন, 'আমাদের কাছে যখন এ ধরনের সমস্যা আসে। তখন আমরা চেষ্টা করি দুপক্ষকে ডেকে বিষয়টি নিয়ে মীমাংসের উদ্যোগ নেওয়ার। এ ছাড়া বিচ্ছেদ রোধে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করছি।'

নিউজটি আপডেট করেছেন : Banglar Jamin

কমেন্ট বক্স

এ জাতীয় আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ