• বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

ইটভাটার কালো ধোঁয়া এবং ফসলি জমির বিনাশ

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১২ মে, ২০২২
  • ৩৪

নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার ইটভাটার কালো বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রতি বছর নষ্ট হচ্ছে একরের পর একর জমির ফসল। এতে একদিকে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন প্রান্তিক চাষিরা; অন্যদিকে জমির উর্বরতা শক্তি কমছে। এতে উৎপাদন সক্ষমতাও নেমে আসছে বলে মনে করে কৃষি বিভাগ।

সাড়ে ৯ হাজার হেক্টর কৃষিজমি সমৃদ্ধ সৈয়দপুর উপজেলায় রয়েছে ৩৬টি ইটভাটা। এসব ইটভাটায় ব্যবহার হচ্ছে কয়লার পাশাপাশি অবৈধভাবে প্লাষ্টিক কারখানার বর্জ্য। ইটভাটার কালো ও বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রতি বছরই আশপাশের ইউনিয়নের একরের পর একর জমির ধান নষ্ট হচ্ছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চলতি বছরের মার্চ মাসে ইটভাটা বন্ধ করে দেওয়ার কথা থাকলেও এ ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ নেয়নি ভাটা মালিকরা। ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় কেবল ফসল নয়, নষ্ট হচ্ছে গাছপালা ও কমে আসছে মৌসুমি ফলের উৎপাদন।

ইটভাটার কালো ধোঁয়া ও জমির টপ সয়েল কেটে নেয়ায় উৎপাদন কমার পাশাপাশি ভূমির উর্বরতা কমে যাচ্ছে বলে জানান কৃষি কর্মকর্তারা।

স্থানীয় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মমতা সাহা বলেন, ‘এলাকাজুড়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। গাছের পাতাগুলো পুড়ে যাচ্ছে। মূলত ইটভাটার কালো ধোঁয়ার জন্যই এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।’

স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের জেলা প্রশিক্ষণ অফিসার মোছা. হুমায়রা মণ্ডল বলেন, ‘মূলত কৃষকরা ইটভাটায় টপ সয়েল দেওয়ার কারণে জমির উর্বরতা নষ্ট হচ্ছে। আমরা বিভিন্ন সেমিনার-সমাবেশে তাদেরকে বোঝানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, সৈয়দপুর উপজেলায় এবার বোরো মৌসুমে সাড়ে ৭ হাজার হেক্টর জমিতে ধান আবাদ হয়েছে।

 

সূত্র- সময় টিভি
ডেস্ক রিপোর্ট/ জান্নাত

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..