• বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ১০:১১ অপরাহ্ন

চোখে ড্রপ দিলে কি রোজা ভাঙবে?

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২২
  • ৪৭

ইসলাম ধর্মে রোজা একটি ফরজ ইবাদত। আর এই ফরজ ইবাদতের মাস পবিত্র রমজান মাস। এই মাসে বিশ্বের সব ধর্মপ্রাণ মুসলমান রোজা রাখার ধর্মীয় বিধান পালন করে থাকেন। এ মাসজুড়ে মুসল্লিরা আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভে ইবাদতে মশগুল হন, দান-সদকা করেন, রোজা রাখেন। আর এই রোজাকে ঘিরে আমাদের মধ্যে ঘুরপাক খায় নানা প্রশ্ন। তার মধ্যে একটি হলো, রোজা রেখে চোখে ড্রপ দিলে রোজা ভাঙবে কি না?

রমজান মানেই রোজাদারদের জন্য বিশেষ এক পরীক্ষা। এ পরীক্ষা যেমন মহান সৃষ্টিকর্তার অনুগ্রহ লাভের, ঠিক তেমনি সুস্থ-সবল দেহে পরিপূর্ণভাবে সব আমল ও ইবাদত সম্পন্ন করার। আমরা রোজা রাখি। কখনো এমন হয়, রোজা অবস্থায় ওষুধ ব্যবহার করতে হয়। অনেকেরই দিনের বেলায় ওষুধের অংশ হিসেবে চোখে, নাকে কিংবা কানে ড্রপ দিতে হয়। রোজাবস্থায় এ ওষুধ সেবনের বিধান কী? এর মাধ্যমে কি রোজা ভেঙে যাবে? ইসলাম এ ব্যাপারে কী বলে?

আসুন জেনে নিই রোজা অবস্থায় ড্রপ ব্যবহার করার বিধান। এককথায় এর জবাব হলো, চোখে ড্রপ ব্যবহার করলে রোজা ভাঙবে না। তবে চোখে ড্রপ দেওয়ার পর যদি তার ঘ্রাণ বা স্বাদ খাদ্যনালি পর্যন্ত চলে যায়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে। তবে সাধারণত চোখে ওষুধ বা ড্রপ ব্যবহার করলে খাদ্যনালিতে পৌঁছে না। এরপরও রোজা অবস্থায় চোখে ড্রপ ব্যবহারে সতর্ক থাকা জরুরি।

এর সঙ্গে সম্পৃক্ত আরও একটি মাসয়ালা হলো, রোজা অবস্থায় নাকে ও কানে ড্রপ ব্যবহার করার বিধান সম্পর্কে?

যদি কানে ও নাকে ড্রপের মাধ্যমে ওষুধ দেওয়ার পর তা খাদ্যনালিতে চলে যায়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে। আর যদি না যায়, তাহলে রোজা ভাঙবে না। তবে ড্রপ ছাড়া যদি তৈলাক্ত কোনো ওষুধ ব্যবহার করা হয়, আর যদি তা খাদ্যনালিতে পৌঁছে যায়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।

কেননা হাদিসে আছে, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেছেন, শরীর থেকে কোনো কিছু বের হলে অজু করতে হয়, প্রবেশ করলে নয়। পক্ষান্তরে রোজা এর উল্টো। রোজার ক্ষেত্রে কোনো কিছু শরীরে প্রবেশ করলে রোজা ভেঙে যায়, বের হলে নয় (তবে বীর্যপাতের প্রসঙ্গটি ভিন্ন)। (সুনানে নাসাঈ, বায়হাকি ৪/২৬১)

সূত্র- সময় টিভি
ডেস্ক রিপোর্ট/ জান্নাত

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..