• রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

ভোলার চরফ্যাশনে শিক্ষক লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভা

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১
  • ৮১

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

ভোলার চরফ্যাশনে এডভোকেট হারুন অর রশীদ ফরাজী কর্তৃক চেয়ারম্যান বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রাসেদুল ইসলামকে লাঞ্চিতের প্রতিবাদে স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষক সমিতির প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই ঘটনায় চরফ্যাশন থানায় একটি সাধারন ডাইরী করা হয়েছে।
মঙ্গলবার (২২ জুন) বিকেল ৫টার সময় চরফ্যাশন মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির আয়োজনে চরফ্যাশন প্রেসক্লাবের হলরুমে এ প্রতিবাদ অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে চরফ্যাশন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মনির আহমেদ শুভ্র, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবির রাজন, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, জমিয়াতুল মোদার্রেছীন চরফ্যাশন উপজেলা শাখার সভাপতি অধ্যক্ষ মাওঃ মাঈনুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ কামরুজ্জামান, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের জেলা আহবায়ক শহীদুল ইসলাম শামিম, উপজেলা আহবায়ক মোস্তাফিজুর রহমান ভূট্টু, স্বাধীনতা মাদরাসা শিক্ষক পরিষদের চরফ্যাশন উপজেলা আহবায়ক সহকারী অধ্যাপক মাওলানা নূরুল আমিন সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও শিক্ষকগন উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য- গত ২১ জুন ইউনিয়ন পরিষদ সাধারন নির্বাচনে চরফ্যাশন উপজেলা শশীভূষণ থানার চর কলমী ইউনিয়ন ৮নং ওয়ার্ডে মোরগ প্রতীক নিয়ে মেম্বার প্রার্থী মোঃ জয়নাল আবেদীন ১শত ৭০ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন। মেম্বার না হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে জয়নালের ভাই এডভোকেট হারুন অর রশিদ ২২ জুন সকালে চরফ্যাশন মাছ বাজার জনসস্মুখে ওই ওয়ার্ডের কেন্দ্রে নির্বাচনে দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার প্রধান শিক্ষক মোঃ রাসেদুল ইসলামকে দেখতে পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও লাঞ্ছিত করেন।
শিক্ষক লাঞ্ছিত প্রতিবাদ বক্তারা বলেন, অনতিবিলম্বে মাদকাসক্ত এডভোকেট হারুন অর রশিদ কে চরফ্যাশন আইনজীবী সমিতি থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানান। বির্তকিত এডভোকেট হারুন অর রশিদ এর বিরুদ্ধে মাদক সেবন, নারী নির্যাতন ও একাধিক বিয়ে ও বিভিন্ন মানুষকে মিথ্যা মামলায় হয়রানির অভিযোগও করেন শিক্ষক নেতারা। এছাড়া বির্তকিত এডভোকেট হারুন অর রশিদ দক্ষিণ আইচা থানা পুলিশের হাতে ইয়াবা সহ গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে গিয়েছেন। শেষে আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সম্পাদক বরারব এডভোকেট হারুন অর রশিদ বিচার চেয়ে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।
তবে এই ঘটনার ব্যাপারে এডভোকেট হারুন অর রশিদ ফরাজী বলেন, ওই শিক্ষক ভোট কেন্দ্রে পক্ষপাত আচরন করেছেনএবং জাল ভোট দেওয়ার সময় দুইজনকে ধরে দেওয়ার পর তাদেরকে ছেড়ে দেন। তিনি আরো জানান পক্ষপাত আচরন ও জাল ভোট দেওয়ায় দুইজনকে ধরে দেওয়ার পরও তাদেরকে ছেড়ে দেওয়ার ঘটনায় তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করা হবে।
চরফ্যাশন থানার অফিসার ইন চার্জ( ওসি) মোঃ মনিরুল ইসলাম মিয়া জানান, এডভোকেট হারুন অর রশিদ ফরাজী কর্তৃক এক শিক্ষক লাঞ্ছিত ঘটনায় একটি সাধারন ডাইরী করা হয়েছে।


কামরুজ্জামান শাহীন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..