• মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ১০:১৭ অপরাহ্ন

দাড়ি কেটে মোদিকে বিদায়!

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
  • ১১৭

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মতোই বড় সাদা দাড়ি রেখেছিলেন। কিন্তু মোটেই তা মোদিকে ভালোবেসে নয়। বরং ‘দিদি’কে ভালোবেসেই এক অভিনব চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলেন ফুলবাড়ির পূর্ব ধানতলার বাসিন্দা খগেন্দ্রনাথ রায়। প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, যেদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন, সেদিনই দাড়ি কাটবেন। রাজ্য থেকে যে নরেন্দ্র মোদিকে বিদায় দিতে পেরেছেন, এই বার্তাই একটু অন্যভাবে দিতে চেয়েছিলেন তিনি।

ছয় মাস আগে করা সেই প্রতিজ্ঞাই এবার পূরণ হল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পরই জাঁকজমক অনুষ্ঠান করে নাপিত ডেকে ‘মোদিসুলভ’ দাঁড়ি কাটলেন খগেন্দ্রনাথ। অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতারাও। এ প্রসঙ্গে স্থানীয় তৃণমূল নেতা দিলীপ রায় বলেন, ‘খগেন্দ্রনাথ তার প্রতিজ্ঞার কথা সকলকে জানিয়েছিলেন। বিজেপি নির্বাচনে হেরেছে। তাই তাদের বিদায় জানাতে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।’

উল্লেখ্য, এলাকার সক্রিয় তৃণমূল কর্মী খগেন্দ্রনাথ রায়। জেলার মধ্যে যেখানেই মুখ্যমন্ত্রীর সভা থাকত খগেন্দ্রনাথ ছুটে যেতেন সেখানে। এছাড়া দলের মিটিং-মিছিলেও নিয়মিত যান তিনি। কিন্তু দাড়ি রাখার প্রতিজ্ঞা নিলেন কেন? খগেন্দ্রনাথের উত্তর, ‘গতবছর দেখেছিলাম প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সাদা দাড়ি রাখা শুরু করেছেন। তা নিয়ে বিস্তর চর্চাও শুরু হয়েছে। এরপরই ঠিক করি, মোদির মতো দাড়ি রাখব। আর যেদিন বাংলায় বিজেপি হারবে সেদিন মোদিকে বার্তা দিয়ে সেই দাড়ি কেটে নদীতে ভাসিয়ে দিয়ে বিজেপি-কে বিদায় জানাব।’

যদিও নির্বাচনের আগে দলের ফলাফল নিয়ে কিছুটা চিন্তায় ছিলেন খগেন্দ্রনাথ। তবে ২ মে দল ২০০ পার করতেই বেজায় খুশি হন তিনি। তারপরই ঠিক করেন, সেলুনে নয় লোক ডেকে বাজনা বাজিয়ে দাড়ি কাটবেন। সেইমতো বুধবার ব্যান্ড পার্টি ডাকেন। স্থানীয় একটি মাঠে বাজনা বাজানো শুরু হয়। আনা হয় সবুজ আবির। আনন্দে মাতেন এলাকার তৃণমূল কর্মীরা। এরপর সকলকে চেয়ারে বসিয়ে, নিজে সবুজ আবির মেখে দাড়ি কাটান খগেন্দ্রনাথ।

সূত্র: এইসময়

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..