• সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০৯:১৫ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
ছেলে শিক্ষার্থী কমে যাচ্ছে কেন, ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ আল-জাজিরার প্রতিবেদন নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী নীলফামারীতে বাস ও ইজিবাইক মুখোমুখি সংঘর্ষে ১ শ্রমিকের মৃত্যু।।আহত আরও ১১ নীলফামারীর সৈয়দপুরে ট্রলির ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী যুবকের মৃত্যু। সুন্দরগঞ্জে আ’লীগ সদস্যকে নিয়ে বিভ্রান্তি নন্দীগ্রামে বাড়ি নির্মানে চাঁদা দাবি, গ্রেফতার দুই আজ ২৮ শে ফেব্রুয়ারি ২০২১ইং, জেনে নিন আজকের রাশিফল। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে যুক্তরাষ্ট্রকে নেতৃত্ব দেওয়ার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর রাজারহাটে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত। ভোলাহাটে চূড়ান্ত মিনি নাইট ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

জেনে নিন ‘ডোপ টেস্ট’ কী

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ 

বেশীরভাগ মাদকের কার্যক্ষমতা কম সময় থাকলেও কিছু কিছু মাদক বা এ্যলকোহল জাতীয় নেশাকর পন্য আছে, সময়ের সাথে সাথেও যার রেশ শরীরে থেকে যায়। আর এগুলোই ডোপ টেস্টের মাধ্যেমে ধরা হয়। খেলাধুলায় বা অন্যান্য কাজে আর্টিফিশিয়াল কিছু ব্যবহার করে নিজের শারিরিক শক্তি বাড়িয়ে লাভবান হওয়ার সুযোগ নাই।

অতিরিক্ত পারফরমেন্সের উদ্দেশ্যে মাদক গ্রহণ করার পর যখনই কারো উপর ক্রীড়া নিয়ন্ত্রণ সংস্থা গুলোর সন্দেহ হয় বা সন্দেহের অভিযোগ তোলা হয়, তখন তারা তাকে শোকজ করে থাকে। পরবর্তীতে ঐ খেলোয়াড়কে ডোপ টেস্টের সম্মুখীন হতে হয়। যদি ফলাফল নেগিটিভ হয় তাহলে তাকে অর্থদণ্ড, বরখাস্ত বা কারাভোগের শাস্তি দেওয়া হয় ক্রীড়া আইন অনুযায়ী। প্রযুক্তির উন্নতির কারণে অনেক ক্রীড়াবিদই এমন সব নিষিদ্ধ পদার্থ ব্যবহার করেন, যার ফলে ক্রীড়া নৈপুন্যে সাময়িক ভাবে অতিরিক্ত শক্তির যোগান পান তারা ।

মাদক গ্রহণর ফলে দেহের স্বাভাবিক শক্তির চেয়ে অতিরিক্ত শক্তি সঞ্চারিত হয়, যার ফলে স্বাভাবিক ক্রীড়াবিদরা হেরে যায়। এই নিষিদ্ধ কর্মকান্ড প্রতিহত করার জন্যে প্রতিটা আন্তর্জাতিক ক্রীড়াবিদকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিভিন্ন পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হয়, একেই ডোপিং টেষ্ট বলে।

ডোপ টেস্ট সাধারনত অভিযুক্তের রক্ত এবং প্রশ্রাব পরিক্ষা করে পজিটিভ বা নেগেটিভ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়ে থাকে ।

ডোপিং টেষ্টের ফলাফল নেগেটিভ হলে খেলোয়ারকে আন্তর্জাতিক আইনানুযায়ী বিভিন্ন রকম শাস্তি ভোগ করতে হয়। গতবারের শীতকালীন অলিম্পিক সোচি অলিম্পিকে ডোপিং পরীক্ষা করা হয়েছে প্রায় সাড়ে তিন হাজার৷ এটি একটি রেকর্ড৷ কারণ এত বিপুল পরিমাণ পরীক্ষা এর আগে কোনো প্রতিযোগিতায় করা হয়নি৷ তবে এ সব পরীক্ষায় নানা সীমাব্ধতা রয়েছে, যার কারণে নিষিদ্ধ ওষুধ ব্যবহারকারী প্রতিযোগীরা প্রায়ই পার পেয়ে যাচ্ছেন৷

দুর্ভাগ্যজনকভাবে গত কয়েক বছরে চিকিৎসা শাস্ত্রের উন্নতি হলেও ডোপিং পরীক্ষায় তা প্রয়োগ করা হচ্ছে না৷ সমস্যাটা হলো, যেসব প্রতিযোগী ভীষণ চালাক, তাঁদের একটি দল আছে৷ এই দলটি জানে, কিভাবে স্বল্প পরিমাণে একটি দ্রব্যের সাথে অন্য দ্রব্য মিশিয়ে ব্যবহার করা যায়, যার ফলে তা পরীক্ষায় ধরা পড়ে না৷

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..