• মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০২:১৮ অপরাহ্ন

ময়মনসিংহের ফুলপুর পৌর নির্বাচনে প্রচারণা জমজমাট কে হবে পৌর প্রধান 

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৫৯
মিজানুর রহমান, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ
আসছে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী ময়মনসিংহের ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচন।প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। প্রচার প্রচারণায় সরগরম পৌর সভার নির্বাচনী মাঠ। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠছে গোটা পৌর এলাকা। সর্বত্র বিরাজ করছে নির্বাচনী আমেজ, সাজসাজ রব। হাট-বাজার, রাস্তার মোড়, পড়া- মহল­ায় সর্বত্রই ঝুলছে প্রার্থীদের ছবি ও প্রতীক সম্বলিত পোষ্টার। পোষ্টারে পোষ্টারে ছেয়ে। দলীয় মনোনীত প্রার্থীরা থানা ও কেন্দ্রীয় নেতারা নির্বাচনী নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ করে বারতি আমেজ সৃষ্টি করেছেন। তবে আওয়ামী লীগ-বিএনপি’র মনোনীত প্রার্থীর গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে মনোনয়নবঞ্চিত বিদ্রোহী প্রার্থীরা। আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মিঃ শশধর সেন এর বিপক্ষে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন সাবেক মেয়র মোহাম্মদ শাহজাহান। নির্বাচনে মোহাম্মদ শাহজাহান খুব এখন পর্যন্ত তেমন প্রভাব ফেলতে না পারলেও তিনি যে ভোট গুলো পাবেন তার সবগুলোই নৌকার ভোট। বিজয়ের ব্যাপারে তিনি আশাবাদী বলে জানান ।
এদিকে প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে থাকা নৌকার প্রার্থী শশধর সেনের পক্ষে দলীয় নেতাকর্মীরা একাট্টা হয়ে মাঠে নেমেছেন। উপজেলার দিও মোরে এক জনসভায় উপস্থিত হয়ে কৃষকলীগ কেন্দ্রীয় নেতা বদিউজ্জামান বাদশা বলেন ফুলপুরে আমরা ভাল প্রার্থী দিয়েছি আগামী ১৪ তারিখ নৌকার প্রার্থী শশধর সেন অবশ্যই বিজয়ী হবে, তাকে বিজয় করতে যা যা করা দরকার তাই করা হবে। উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল ও ফুলপুর আওয়ামী লীগের যুগ্ন আহবায়ক হাবিবুর রহমান বলেন নৌকাকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীরা রাতদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে । বিএনপি’র মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী বর্তমান মেয়র আমিনুল হক। বিগত নির্বাচনে বিএনপি’র যে সকল নেতাকর্মীর তার বিরোধিতা করেছিল এবার আমিনুল হক কে বিজয়ী করতে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন। তবে গত নির্বাচনে পক্ষে থাকা অনেক নেতাকর্মীকেই তার সাথে দেখা যাচ্ছে না। ফলে বিএনপি প্রার্থীর গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে বিএনপি’র বিদ্রোহী শক্তিশালী প্রার্থী রাকিবুল হাসান সোহেল। বিএনপির সাবেক সাংসদ এডভোকেট আবুল বাসার আকন্দ জানান বর্তমান মেয়র বিএনপি প্রার্থী আমিনুল হক গতবারের চেয়ে বেশি ভোট পেয়ে আবারও মেয়র নির্বাচিত হবেন । জেলা বিএনপি নেতা মোতাহার হোসেন তালুকদার বলেন সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীষের প্রার্থীর বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না । বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থীর সোহেল সমর্থকদের দাবি আওয়ামী লীগ-বিএনপি বিকল্প প্রার্থী হিসেবে সোহেলকে এবার ভোটাররা তাদের মেয়র নির্বাচিত করবেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী এম এইচ ইউছুফ আইনি লড়াই করে তার প্রার্থিতা টিকিয়েছেন বিজয়ের আশা নিয়ে তিনিও মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। সব পক্ষের অনেকের সাথে কথা বলে মনে হয়েছে সবাই নিজ নিজ পক্ষের প্রার্থীর পক্ষে সাফাই গাইছেন। তবে শেষ হাসি কে হাসে তা জানা যাবে ১৪ ই ফেব্রুয়ারি ভোট শেষে ফলাফল প্রকাশের পর। এদিকে গেছে গোটা পৌর শহর চলছে মাইকিং।ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তারা হলেনঃ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মিঃ শশধর সেন (নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ( বিএনপি) মনোনিত প্রার্থী মোঃ আমিনুল হক (ধানের শীষ), আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ শাহজাহান (জগ), বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী রকিবুল হাসান (নারিকেল গাছ) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এম এইচ ইউসুফ । এছাড়াও ৯টি ওয়ার্ডে সাধারন কাউন্সিলর পদে ৪৪ জন এবং ৩ টি ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৩ জনসহ মোট ৫৭ জন কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচনী যুদ্ধে নেমেছেন। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে মেয়র, সাধারন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীরা ও তাদের কর্মী সমর্থকরা নিজেদের প্রতীক ভোটারদের জানান দিতে নানা কর্মকান্ড নিয়ে জোরেশোরে নির্বাচনী মাঠে নেমে পড়েছেন। ছুটছেনভোটারদের দ্বারে দ্বারে । তারা কুশল বিনিময়, বাড়ি বাড়ি গিয়ে উঠান বৈঠক, পাড়া-মহল্লায় গণসংযোগ সহ বিভিন্ন ভাবে ভোটারদের কাছে নিজেদের পরিচয় তুলে ধরছেন এবং নিজ নিজ প্রতীকে ভোট চাচ্ছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রচারে রয়েছেন সরব। সব প্রার্থী ভোট চেয়ে ইতোমধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে দিয়েছেন পোষ্টার, প্যানা ও লিফলেট।
মেযর প্রার্থীদের সাথে সাথে কাউন্সিলর প্রার্থীরাও কম নয়। তারাও প্রচারে সমানতালে চলছে। প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে প্রার্থীরা ও তাদের কর্মী সমর্থকরা চালিয়ে যাচ্ছেন প্রচারণা। বিশেষ করে মহিলা ভোটারদের সমর্থনের আশায় বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন একের পর এক প্রার্থী ও তাদের কর্মী সমর্থকরা। চায়ের দোকান ,হোটেল রেষ্টুরেন্ট, রাস্তার মোড়, অফিস পাড়াসহ সর্বত্র চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা পর্যালোচনা। প্রার্থীদের নিয়ে ভোটাররা কষছেন ভোটের হিসাব নিকাশ । সাধারণ ভোটাররা মুখ না খুললেও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের নিয়ে করছেন চুলচেরা হিসাব নিকাশ। ফুলপুর পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ২২ হাজার ৯৩৪ জন। এরমাঝে পুর“ষ ভোটার ১১ হাজার ১৪ জন ও মহিলা ভোটার ১১ হাজার ৯২০ জন। ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার সৈয়দা আশুরা আক্তার খাতুন বলেন, সকল প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে প্রচার-প্রচারণা চালানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা শীতেষ চন্দ্র সরকার সোমবার আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জানান আগামী ১৪ ই ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে ফুলপুর পৌরসভায় আমরা রক্তপাতহীন ভালোবাসাপূর্ণ এক সুন্দর নির্বাচন দেখার প্রত্যাশা করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..