• বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন

যশোরের সেই বৃদ্ধা মা পেল দেশসেরা উদ্ভাবক মিজানের সহযোগিতায় হুইল চেয়ার

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০
  • ৪২

সোহেল রানা,যশোর প্রতিনিধিঃ

যশোরের বাঘারপাড়ায় ফিজারন নেছা (১০১) নামে সেই অসহায় বৃদ্ধা মা দেশসেরা উদ্ভাবক মিজানের সহযোগিতায় অবশেষে হুইল চেয়ার পেলো।তিনি বাঘারপাড়া থানাধীন ধলগ্রাম ইউনিয়নের আগড়া গ্রামের মৃত রহম মোল্লার স্ত্রী।

অসহায় বৃদ্ধা নারী ১৩ সন্তানের জননী।এরই মধ্যে তিনি একে একে ছয় সন্তানকে হারিয়েছেন।ছেলে মেয়েরা দারিদ্র্য হওয়ার অসহায় মায়ের ভরন পোষণের দ্বায়িত্ব ঠিকমতো নিতে পারেন না।তাই তিনি পোতা ছেলে রাইহান হোসেনের কাছেই বেশি থাকেন।

বাংলাদেশ জাতীয় সেচ্ছাসেবক সংগঠনের সদস্য আবু হুরায়রা মাধ্যমে জানতে পেরে দেশসেরা উদ্ভাবক মিজানুর রহমান মিজান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বৃদ্ধা নারীর একটি হুইল চেয়ারের সাহায্য সহযোগিতার পোষ্ট করেন।পোষ্ট দেখে এগিয়ে আসেন শার্শার ডিহি ইউনিয়ন পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান হোসেন আলীর ছেলে বাংলাদেশ জাতীয় সেচ্ছাসেবক সংগঠনের সদস্য তরুণ সমাজ সেবক প্রবাসী আব্দুল হাকিম মন্ডল।

তারই আর্থিক সহযোগিতায় দেশসেরা উদ্ভাবক মিজানের প্রচেষ্টায় মঙ্গলবার দুপুরে বৃদ্ধা মা ফিজারন নেছার বাড়িতে গিয়ে হুইল চেয়ার প্রদান করে লাইভ ভিডিও করেন দেশসেরা উদ্ভাবক মিজান।একই সাথে তিনি অসহায় বৃদ্ধা মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নেয়ার আশ্বস্ত করেন।

এ ব্যাপারে বৃদ্ধা মা ফিজারন নেছা বলেন, দেশসেরা উদ্ভাবক মিজানের সহযোগিতায় আমি আজ হুইল চেয়ার পেয়েছি।যিনি আমাকে হুইল চেয়ার দিয়ে সহযোগিতা করেছেন আল্লাহ্ তায়ালা আব্দুল হাকিম মন্ডলকে ভালো রাখুক,সুস্থ রাখুক।একই সাথে তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশসহ পরিবারের সকলের মঙ্গল কামনা করেন।

দেশসেরা উদ্ভাবক মিজান বলেন,যতদিন বেঁচে আছি মানবতার কল্যাণে কাজ করে যেতে চায়।মানুষের ভালবাসা নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই।একই সাথে যারা আমাকে উৎস ও সহযোগিতা করেছেন সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

হুইল চেয়ার প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ জাতীয় সেচ্ছাসেবক সংগঠনের সদস্য আবু হুরায়রা,বাদল নার্সারির পরিচালক বাদল হোসেন, রাইহান উদ্দিন, রাজিবুল ইসলাম,রোমেল হোসেন প্রমুখ।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..