• সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:১৮ অপরাহ্ন

গোপালগঞ্জে স্কুলে ও রাস্তার পাশে কুড়ে ঘর বানিয়ে আশ্রয় নিয়েছে ৫শতাধিক বানভাসী পরিবার

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট, ২০২০
  • ৬৭

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি।।

গোপালগঞ্জে প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। আগে গোপালগঞ্জ সদর, কাশিয়ানী ও মুকসুদপুর উপজেলার ১৫টি গ্রামের বাসিন্দারা পানি বন্দি ছিল। এর সাথে নতুন করে যোগ হয়েছে কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ি ইউনিয়নের শিমুলবাড়ি, কাফুলাবাড়ি এবং রামনগর, কলাবাড়ি ও বৈকন্ঠপুর গ্রাম।

এ নিয়ে জেলার ২০টি গ্রামের অন্তত তিন হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। ৫শ’ পরিবার উঁচু এলাকার বিভিন্ন স্কুলে ও রাস্তার পাশে কুড়ে ঘর বানিয়ে সেখানে আশ্রয় নিয়েছে। এসব এলাকার ছোট বড় এক হাজারের বেশী পুকুর বন্যার পানিতে ভেসে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বলেছে মধুমতি নদীতে পানি এখনো বিপদ সীমার ৪০ সেন্টিমিটার এবং মধুমতি বিলরুট চ্যানেলে ১০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা গতকাল (৩আগষ্ট) মধুমতি নদীতে পানি বিপদ সীমার ৩৮ সেন্টিমিটার এবং মধুমতি বিলরুট চ্যানেলে ১০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছিল।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে দূর্গতদের সাহায্যের জন্য ৩শ’ মেট্রিক টন চাল এবং শিশু, গো-খাদ্য ও শুকনা খাবারের জন্য ৬ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..