• বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ০৬:০২ অপরাহ্ন

৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১ জুন, ২০২০
  • ২৯

বাংলারজমিন২৪কম অনলাইন ডেক্স-গণপরিবহনেগণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। সোমবার (১ জুন) রিটটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হুমায়ন কবির পল্লব। বিচারপতি জেবিএম হাসানের হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চে রিটটি শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

রিটে করোনার এ ক্রান্তিকালে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপনটি চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। আইনজীবী হুমায়ন কবির পল্লব জানান, গণপরিবহনে দেশের সাধারণ মানুষেরা যাতায়াত করেন। যাদের প্রাইভেট গাড়ি নেই। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষেরা গণপরিবহনে যাতায়াত করেন। দেশের এ পরিস্থিতিতে কোন যুক্তিতে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। যেখানে সাধারণ মানুষের আয় রোজগার বন্ধ।

আইনজীবী বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় আমাদের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এবং নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের অধিকাংশ কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ অবস্থায় ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করে প্রজ্ঞাপন জারি অসহায় দুর্দশাগ্রস্ত মানুষদের আরও বেশি বিপর্যস্ত ও হতাশাগ্রস্ত করেছে। এ কারণে প্রজ্ঞাপনটি স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

এদিকে প্রজ্ঞাপনটি স্থগিত চেয়ে সরকারকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আরেক আইনজীবী মনিরুজ্জামান লিংকন।


বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গণপরিবহনের ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়েছে সরকার। বিআরটিএ প্রস্তাব দিয়েছিল ৮০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর। সেই প্রস্তাবে কাঁটছাট করে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়ে রোববার (৩১ মে) প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। ১ জুন থেকে ঢাকা মহানগর ও পার্শ্ববর্তী এলাকা এবং চট্টগ্রাম মহানগরসহ দেশের সব আন্তঃজেলা রুটে বাড়তি এ ভাড়া কার্যকর করার কথা বলা হয়।

করা হয়েছে। সোমবার (১ জুন) রিটটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হুমায়ন কবির পল্লব। বিচারপতি জেবিএম হাসানের হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চে রিটটি শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

রিটে করোনার এ ক্রান্তিকালে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপনটি চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। আইনজীবী হুমায়ন কবির পল্লব জানান, গণপরিবহনে দেশের সাধারণ মানুষেরা যাতায়াত করেন। যাদের প্রাইভেট গাড়ি নেই। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষেরা গণপরিবহনে যাতায়াত করেন। দেশের এ পরিস্থিতিতে কোন যুক্তিতে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। যেখানে সাধারণ মানুষের আয় রোজগার বন্ধ।

আইনজীবী বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় আমাদের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এবং নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের অধিকাংশ কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ অবস্থায় ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করে প্রজ্ঞাপন জারি অসহায় দুর্দশাগ্রস্ত মানুষদের আরও বেশি বিপর্যস্ত ও হতাশাগ্রস্ত করেছে। এ কারণে প্রজ্ঞাপনটি স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

এদিকে প্রজ্ঞাপনটি স্থগিত চেয়ে সরকারকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আরেক আইনজীবী মনিরুজ্জামান লিংকন।  

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গণপরিবহনের ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়েছে সরকার। বিআরটিএ প্রস্তাব দিয়েছিল ৮০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর। সেই প্রস্তাবে কাঁটছাট করে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়ে রোববার (৩১ মে) প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। ১ জুন থেকে ঢাকা মহানগর ও পার্শ্ববর্তী এলাকা এবং চট্টগ্রাম মহানগরসহ দেশের সব আন্তঃজেলা রুটে বাড়তি এ ভাড়া কার্যকর করার কথা বলা হয়।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..