• মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ ২০২০, ০৪:৫০ অপরাহ্ন

নিজ বিদ্যালয়ে যুবলীগ নেতার লাঞ্ছনার শিকার এক শিক্ষক

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২১ মার্চ, ২০২০
  • ১৪ বার পঠিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ- নিজ বিদ্যালয়ে যুবলীগ নেতার লাঞ্ছনার শিকার হলেন এক শিক্ষক । এনিয়ে ভুক্তভোগী ওই শিক্ষক বুধবার রাতে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি নথিভূক্ত করেন।

জানা গেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের হরিমোহন সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ে বুধবার দুপুরে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আজমল হোসেনকে যুবলীগের এক নেতা লাঞ্ছিত করেছেন।

ঘটনার সময় বিদ্যালয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাজাহান আকতার, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মুসফিকুর রহমানসহ পাঁচজন উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া বিদ্যালয়ে একজন সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোচিং বাণিজ্যের অভিযোগে তদন্ত করতে আসা একটি দলও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল। ওই তদন্ত প্রভাবিত করতেই চার-পাঁচজনের দলটি বিদ্যালয়ে এসে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে ঢুকেছিল বলে অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে সাধারণ ডায়েরি সূত্রে জানা গেছে শিক্ষক আজমল হোসেন বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কক্ষের সামনে চেয়ারে বসে ছিলেন। এ সময় জিলহাজ নামের এক যুবক এসে তাঁর নাম জানতে চান। তিনি কেন নাম বলবেন, এমন কথাবার্তায় জিলহাজ তাঁকে থাপ্পড় মারতে উদ্যত হন এবং বলেন, ‘থাপ্পড় মেরে তোর গাল ফাটিয়ে দেব। তুই স্কুল থেকে বের হয়ে আয়। তোকে আমি দেখে নেব।’ এ সময় তিনি মানসিকভাবে ভীষণ বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। তখন বিদ্যালয়ে জিলহাজের সঙ্গে জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মুসফিকুর রহমানসহ চার-পাঁচজন ছিলেন।

এ ঘটনায় আজমল হোসেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, বর্তমানে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

এ ব্যাপারে জিলহাজ দাবি করেন, তাঁকে বিদ্যালয়ে ঢুকতে বাধা দেন আজমল হোসেন। তিনি তাঁকে (আজমল) বিদ্যালয়ের পিয়ন মনে করেছিলেন। এ জন্য তাঁর নাম জানতে চান এবং বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। তবে থাপ্পড় মারতে হাত ওঠানোর ঘটনা ঠিক না। তবে যা করেছেন, তা ভুল হয়েছে। তিনি শিক্ষকের কাছে মাফ চেয়ে নেবেন।
জিলহাজ নিজেকে পৌর যুব লীগের সদস্য হিসেবে পরিচয় দেন। এ পরিচয় নিশ্চিত করেন শাজাহান আকতার।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..