• শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ০৩:৫৯ অপরাহ্ন

শরীয়তপুরে ৮ম শ্রেনীর ছাত্রকে পিটিয়ে জখম করলেন প্রধান শিক্ষক

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১১ মার্চ, ২০২০
  • ১২৫২

রাজিব হোসেন রাজন, শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরে ৮ম শ্রেণী এক ছাত্রকে পূর্ব শত্রুতার জেরে পিটেয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে সমিতির হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককের বিরুদ্ধে। তাকে ঘটনাস্থলে না পাওয়ায় মোবাইলে অভিযোগ শিকার করে প্রধান শিক্ষক বলেন, সে নিয়মিত ক্লাশে আসে না, ক্লাশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের জন্য স্বাভাবিক মারা মেরেছি। আর ছাত্রের মা বলেছেন পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার ছেলেকে এভাবে অমানবিক নির্যাতন করেছেন প্রধান শিক্ষক।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার চিতলীয়া ইউনিয়নের সমিতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্র অনিক সিকদার নিয়মিত ক্লাশে না আসায় মঙ্গলবার বিদ্যালয় আসলে এসেম্বলি শেষে তাকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে জখম করেন প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ।অনিকের নানী অসুস্থ হলে তাকে দেখতে গেলে চারদিন স্কুল বন্ধো যায় এতে প্রধান শিক্ষক ক্ষুদ্ধ হয়ে তাকে মারধর করেন। অনিক বর্তমানে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

স্থানীয় ও পারিবারিক সুত্রে জানাযায়, প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ ও অনিকের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক দ্বন্দ চলে আসতেছে, এরই জের ধরে ৮ম শ্রেণী ছাত্র অনিক সিকদারকে মারধর করা হয়। এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সদর পালং থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

নির্যাতিত ছাত্র অনিক বলেন, আমার মামা বিদেশ থেকে এসেছে আর নানু অসুস্থ ছিলো এ কারনে আমি নানা বাড়ি যাই, আমি নিয়মিত ক্লাশ করি, এ কয়েক দিন বন্ধ দেয়ায় স্যার আমাকে মেরেছে। এবং আমি ভর্তি হওয়ার পর থেকে আজও পর্যন্ত স্যার আমার নাম ক্লাশে হাজিরা খাতায় উঠায় নাই।

অনিকের মা নিলুফা বেগম জানান, তার মেয়েকে প্রধান শিক্ষকের ভাতিজা বিভিন্ন সময় বিরক্ত করতো, সে কারণে তার ভাতিজার বিরুদ্ধে মামলা করে সে মামলার জের ধরে আজকে আমার ছেলেকে প্রধান শিক্ষক মেরে জখম করেছে ।

প্রধান শিক্ষক হারুন রশিদ বলেন, সে নিয়মিত ক্লাশ করে না, অতিরিক্ত ক্লাশ করাই সেখানে আসেনা, ৮ম শ্রেণী ক্লাশটা একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্লাশ, ক্লাশের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য এবং তার ভালর জন্য তাকে রাগাইছি ও দু’একটা চর থাপ্পার মারছি।

পালং থানার ওসি আসলাম উদ্দিন বলেন, এমন একটা অভিযোগ আমার কাছে এসেছে ,এটা আমরা সাধারন ডায়েরি করে আদালতে প্রেরণ করেছি, আদালত থেকে যদি তদন্তের জন্য আসে আমরা তখন তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন প্রেরণ করবো।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..