• রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৫:০৩ পূর্বাহ্ন

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মাস্ক পরে গণবিয়ে!

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৩৭ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্কঃ চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস আতঙ্কে রয়েছেন বিশ্বজুড়ে লাখো মানুষ। চীনের বাইরেও অনেক দেশে এই ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে স্বাস্থ্যপরীক্ষার ব্যবস্থাও করেছে অনেক দেশ। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতেও আটকে থাকেনি ৬ হাজার তরুণ-তরুণীর গণবিয়ে। করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মধ্যেই মাস্ক পরে গণবিয়ে করেছেন তারা। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ কোরিয়ার গাপিংয়ের ইউনিফিকেশন চার্চে। খবর এএফপি।

বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাস্ক পরে গণবিয়ের এই অনুষ্ঠান হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ায়। শুক্রবার দেশটির গাপিয়ংয়ের ইউনিফিকেশন চার্চে এই গণবিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে ৬৪টি দেশের ৬ হাজার জন আসে বিয়ে করতে। বরদের পরনে ছিল স্যুট ও বো টাই, কনেরাও সেজেছিলেন বাহারি গাউনে। কিন্তু সাজে ভিন্নতা থাকলেও বেশির ভাগের মুখেই ছিল মাস্ক। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে বেশির ভাগ বর পরেছিলেন কালো মাস্ক, আর বেশির ভাগ কনের মুখে ছিল সাদা মাস্ক। বিয়ে করতে এলেও ভাইরাস বিষয়ে সচেতন ছিলেন সকলে।

মাস্ক পরে বিয়ে করার ব্যাপারে ৩৫ বছর বয়সী তরুণী লি কিওন-সিওক বলেছেন, ‘এই গণবিয়ের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পেরে আমি ভীষণ আনন্দিত। যেহেতু চারদিকে করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে, তাই সতর্কতার অংশ হিসেবে আমি মাস্ক পরেই বিয়ে করেছি।’

৬ হাজার দম্পতির এই গণবিয়ের অনুষ্ঠান দেখতে গাপিংয়ের ইউনিফিকেশন চার্চে প্রায় ৩০ হাজার মানুষ জমায়েত হয়েছিলো। দক্ষিণ কোরিয়ার এই চার্চে গণবিয়ের অনুষ্ঠান নতুন কোনো ঘটনা নয়। তবে মাস্ক পরে একসঙ্গে এত বিয়ের কারণে এবার আলোচনায় এসেছে অনুষ্ঠানটি। পরিস্থিতি বিবেচনায় বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থাও নিয়েছিল চার্চ কর্তৃপক্ষ। সবার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার থেকে শুরু করে তাপমাত্রা পরিমাপ করার ব্যবস্থাও রাখা হয় অনুষ্ঠানে। তবে সবাই যে মাস্ক পরে বিয়ে করেছেন, তা নয়। কেউ কেউ মাস্ক ছাড়াই বিয়ে করেছেন।

গত ২০ জানুয়ারি দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত দেশটিতে ২৪ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেও এখনও কেউ মারা যায়নি।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..