• রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৫:১৭ অপরাহ্ন

জাতির শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হতে পুরোপুরি প্রস্তুত সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ।

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১৪৬

বাংলারজমিন ডেক্স-
১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয়ের দিনে লাখো লাখো শহীদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত হচ্ছে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ। মহান বিজয় দিবসকে ঘিরে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল আকবার হোসেনের নেতৃত্বে ও তত্ত্বাবধানে ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়ছে। সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনীসহ সামরিক বাহিনীর সদস্যরা তাদের চূড়ান্ত মহড়া ইতিমধ্যে শেষ করেছেন।

সবুজে ঘেরা ১০৮ হেক্টর জমির উপর নির্মিত স্মৃতিসৌধটির সৌন্দর্য বর্ধনে দেড় মাস ধরে গণপূর্ত বিভাগের প্রায় একশ শ্রমিক কাজ করছেন। নিরাপত্তা ও শ্রমিকদের কাজের সুবিধার্থে গত ১২ থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্মৃতিসৌধে দর্শনার্থীদের প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। স্মৃতিসৌধ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, মূল স্মৃতিসৌধসহ গোটা এলাকার প্রাঙ্গণ ঘষে-মেজে পরিষ্কার করা হচ্ছে। রং তুলির আঁচড় রাঙানো হচ্ছে সৌধের পাদদেশেসহ পায়ে চলার রাস্তা। লাল সবুজের সমারোহে সাজানো হচ্ছে ফুলের বাগানগুলো।

ছোট্ট গাছের সারিতে তৈরি করা হচ্ছে লাল-সবুজের পতাকা। এছাড়া চলছে স্মৃতিসৌধের বাইরে ভেতরে আলোকসজ্জার কাজও। নিরপত্তার জন্য এবার স্মৃতিসৌধ এবার স্মৃতিসৌধ এলাকার ৩২টি পয়েন্টে সিসিটিভি ক্যামেরা যুক্ত করা হয়েছে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চলছে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কেও। সমানভাবে চলছে বিভিন্ন নিরাপত্তা বাহিনী ও সংস্থার মহড়াও। যারা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে এ বিজয় আর বাঙ্গালি জাতির সবচেয়ে আনন্দের দিন ছিনিয়ে এনে দিয়েছে সেই সব শহীদকে বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় স্মরণ করবে দেশের সর্বস্তরের মানুষ।

তাই প্রতিবারের মতো এবারও মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতির শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হতে পুরোপুরি প্রস্তুত সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ। জাতির গৌরব আর অহংকারের এ-দিনটিতে স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে নামবে লাখো মানুষের ঢল। তাদের হৃদয় নিংড়ানো শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ফুলে ফুলে ভরে উঠবে শহীদ বেদি। দিবসটি উপলক্ষ্যে গণপূর্ত বিভাগের কর্মীদের টানা কয়েকদিনের অক্লান্ত পরিশ্রমে এক নতুন রূপ ধারণ করেছে স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণ। লাল-সবুজের আভায় সেজেছে পুরো স্মৃতিসৌধ এলাকা।

সাভার গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জোয়ারদার তাবেদুন নবী বলেন, টানা কয়েক দিন ব্যাপক কর্মযজ্ঞ আর পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা শেষে স্মৃতিসৌধ সেজেছে ভিন্নরূপে। অন্যবারের তুলনায় মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে এবার স্মৃতিসৌধকে নতুন আঙ্গিকে সাজানো হয়েছে।

শেষ করা হয়েছে ধোয়ামোছা ও রং তুলির কাজ। স্মৃতিসৌধের বিভিন্ন ধাপে রং তুলির আঁচড়ের আলপনায় অপরূপ সাজে সাজানো হয়েছে। স্মৃতিসৌধ মিনারের সম্মুখ ভাগে হেরিংবন্ড ধরে নিচু জায়গাগুলোতে সবুজ ঘাসের মধ্যে শোভা পেয়েছে লাল, নীল, হলুদ, বেগুনিসহ নানা রঙের ফুল গাছের চারা। যা প্রতিবারের মতো এবারও সৌধ এলাকাকে এনে দিয়েছে রঙিন ও বর্ণিল রূপ।

ঢাকার জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মারুফ হাসান সরদার বলেন, আমরা ডিসেম্বরের মাসের থেকে স্মৃতিসৌধ এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থার উপর নজরদারি বাড়িয়েছি। বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করণে সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দু’পাশ ও ওভার ব্রিজসহ বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি বসানো হয়েছে বাড়তি পুলিশি চেকপোস্ট। এছাড়াও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্য বাড়ানো হয়েছে সার্বক্ষণিক গোয়েন্দা নজরদারি। সাভারের আমিনবাজার থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের জাতীয় স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত সিসি ক্যামেরার আওতায় নেওয়া হয়েছে। ১৬ ডিসেম্বরের প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিদেশি কূটনীতিকদের শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদনের পর তা সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হবে বলেও জানান তিনি।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী শ্রদ্ধা জানানোর পর সকাল জাতীয় স্মৃতিসৌধ সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। এ লক্ষ্যে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাসহ গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..