• শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০১:৫২ পূর্বাহ্ন

বি ইউনিটে প্রথম হওয়াকে কেন্দ্র করে তদন্ত কমিটি গঠন

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৯৬

বেরোবি প্রতিনিধি:

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় বি ইউনিটের তৃতীয় শিফটে মেধা তালিকায় প্রথম হওয়া পরীক্ষার্থীর বিষয়ে অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ায় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) রেজিস্ট্রার আবু হেনা মুস্তাফা কামাল এক অফিস আদেশের মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক এবং ফাইন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো: নুর আলম সিদ্দিককে আহ্বায়ক করে ৩ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাজিয়া সুলতানা এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক মোঃ সানজিদ ইসলাম খান। কমিটিকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে রিপোর্ট দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য; ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় দুইটি ইউনিটে ফেল করলেও ‘বি’ইউনিটে রেকর্ড পরিমাণ মার্কস নিয়ে প্রথম হয়েছে মিসকাতুল জান্নাত নামের এক শিক্ষার্থী। তিনি বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইগাড়ী ইউপির এনামুল বারীর মেয়ে এবং বেরোবির ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক ইমরানা বারীর আপন ছোট বোন। ‘বি’ (সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ) ইউনিটে ওই শিক্ষার্থী যে পরিমাণ মার্কস পেয়েছে ছয় ইউনিটের ১৬ শিফটে কেউ সে পরিমাণ মার্কস তুলতে পারেনি।

‘এ’ ইউনিটের তৃতীয় শিফটের (রোল-১৪১৭৫২) পরীক্ষায় ন্যূনতম মার্কস (৩০) নিয়ে পাস করতে পারেনি মিশকাত। একইভাবে ‘এফ’ ইউনিটের চতুর্থ শিফটের (রোল-৬৪১৭৫১) পরীক্ষায় অংশ নিয়ে অকৃতকার্য হন তিনি। অথচ এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফল খারাপ হওয়া সত্ত্বেও ‘বি’ ইউনিটের (সামাজিক বিজ্ঞান) চতুর্থ শিফটের (রোল ২৪০২৭৮) পরীক্ষায় অংশ নিয়ে এমসিকিউয়ে ৮০ মার্কস এর মধ্যে ৬৭.২৫০ এবং রেজাল্ট স্করে ১৮.২৩৫ সহ মোট ৮৫. ৪৮৫ পান যা অন্য কোনো ইউনিটে আর কেউ তুলতে পায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..