• শনিবার, ১৫ অগাস্ট ২০২০, ০৫:৪০ অপরাহ্ন

অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে পেঁয়াজের দাম!

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
  • ২৪৫

অনলাইন ডেস্ক-

রেকর্ডের পর রেকর্ড ছড়াচ্ছে পেঁয়াজের দাম। অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে পেঁয়াজের দাম বেড়ে ছুঁয়েছে প্রায় ২০০ টাকায়। রাজধানীর বাজারগুলোতে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে শুরু করে ১৯০ টাকায়।

গত সেপ্টেম্বেরের শুরু থেকে বাজারে ব্যাপক হারে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। ৪০-৫০ টাকার থেকে হঠাৎ করে ৮০-৯০ টাকায় পৌঁছায় পেঁয়াজের কেজি প্রতি দাম। মাসের শেষের দিকে দাম কিছুটা কমতে শুরু করলেও ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণার পরপরই হু হু করে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম।

অক্টোরের প্রথম দিকে আবারও পেঁয়াজের দাম বেড়ে দাঁড়ায় ১০০ টাকার ওপরে। কয়েকদিনের ব্যবধানে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১৩০ টাকায়। অক্টোবরের শেষের দিকে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল কেজি প্রতি ১৫০-১৬০ টাকায়। এখন সেটি দাঁড়িয়েছে ১৭০ টাকা থেকে শুরু করে ১৯০ টাকায়।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) রাজধানীর কয়েকটি বাজারগুলো দেখা যায়, দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭০ টাকা থেকে শুরু করে ১৯০ টাকা। আবার কিছু বাজারে একটু বাছাই করা পেঁয়াজ প্রতি কেজি চাওয়া হচ্ছে ২০০ টাকা।

দুই-একদিনের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে পাল্লা (৫ কেজি) প্রতি বেড়েছে ১০০ টাকা। তাই বাধ্য হয়ে খুঁচরা বাজারে দাম বাড়িয়েছে বিক্রেতারা। তবে ক্রেতাদের নানা মন্তব্যে পেঁয়াজ বিক্রির প্রতি অনীহাই প্রকাশ করেছে অনেক খুঁচরা বিক্রেতারা।

শান্তিনগর বাজারের দোকানদার মাহমুদুল হাসান বলেন, ‘কারওয়ান বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। দুইদিন আগেও যে পেঁয়াজ পাল্লা প্রতি রাখা হতো ৬৮০ টাকা, সেই পাল্লা প্রতি এখন রাখা হচ্ছে ৭৫০ টাকা। একটু বড় সাইজের ভালো মানের পেঁয়াজের পাল্লা প্রতি রাখা হচ্ছে ৭২০ টাকা থেকে শুরু করে ৮০০ টাকা।’

আরেক দোকানদার আবুল কালাম বলেন, ‘বিক্রি অনেক কমেছে। যে কাস্টমার আগে ২ কেজি পেঁয়াজ নিতো। তিনি এখন হাফ কেজির বেশি নিচ্ছেন না। এখনও আরও কমে গেছে। দাম শুনে অনেক ক্রেতা নানা মন্তব্য করেন। ভাবছি আপাতত পেঁয়াজ বিক্রিই বন্ধ করে দিবো।’

অনেক ক্রেতাকে দোকানদারদের সঙ্গে পেঁয়াজের দরদাম করতে দেখা গেছে। দামে সন্তুষ্ট না হতে পেরে আশাহত হয়ে খালি হাতেই ফিরছেন ক্রেতারা। ১০ জন দরদাম করে ১-২ জনকে পেঁয়াজ কিনতে সরেজমিনে দেখে গেছে।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..