• মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন

রংপুর মেট্রোপলিট্রন পুলিশের এক সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে প্রেমিকার মায়ের থানায় অভিযোগ

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ১৭৮

আশরাফুল ইসলাম/বাংলারজমিন২৪

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ রংপুর মেট্রোপলিট্রন পুলিশে কর্মরত আবু বক্কর সিদ্দিক নামে এক পুলিশ কনস্টেবলসহ তার এক সহযোগীর বিরুদ্ধে গাইবান্ধা সদর থানায় প্রেমিকা কলেজ ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছে মা । ধর্ষণের আলামত সংগ্রহে ধর্ষিতা কে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে।

কলেজ ছাত্রীর মা জানান,দীর্ঘদিন হলো অভিযুক্ত ব্যক্তির সহিত আমার কন্যার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে এই সম্পর্ক চলাকালে আমার কন্যাকে আমাদের অজান্তে বিভিন্ন স্থানে যাওয়া আসা ও মেলামেশা করতো এরপর আমার কন্যা বিয়ে দাবী করলে ছেলেটি বিয়ে করতে রাজি হয়ে আবারো একাধিকবার আমার মেয়েকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোড় পূর্বক ধর্ষণ করে।এঘটনার জানা জানি হলে লোকমুখে মুখে উঠে যায়। তখন আমার মেয়ে ছেলেটি বিয়ে কথা জানালে ছেলেটি তালবাহানা শুরু করে ও প্রেমের সম্পর্কে কথা অস্বীকার করে। এরপর স্থানীয়দের নানা কথাবার্তায় লোক লজ্জার ভয়ে আমার মেয়ে জমিতে দেওয়া কিটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে প্রতিবেশীদের সহযোগীতায় গুরুতর অবস্থায় এম্বুলেন্স যোগে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে আমার মেয়ে গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি আরো বলেন আমরা ধর্ষণকারী নারী লোভী লম্পটের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই।

এছাড়াও মেয়ের পরিবার জানায় ছেলেটি পরিবার হতে টাকা এবং ক্ষমতার জোড়ে মেয়ের পরিবারের মুখ বন্ধ করার পায়তারা করছে এবং পুরো বিষয়টি এ পর্যন্ত অস্বীকার করছে।

অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য আবু বক্কর সিদ্দিক (২২) গাইবান্ধা সদর উপজেলার বারবলদিয়া বেকাটারী গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে ও তার সহযোগী হিসাবে অভিযুক্ত আরেকজন পশ্চিম বারবলদিয়া বেকাটারী গ্রামের মকবুল হোসেন এর ছেলে আমিনুল ইসলাম(১৯)।

এবিষয়ে গাইবান্ধা থানা অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ শাহরিয়ারের সাথে কথা বলতে যোগাযোগ করলে তার ব্যস্ততায় কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। এদিকে অভিযুক্ত সিদ্দিকের পরিবারের পক্ষ হতে জানা যায়, সে তার করস্থলে রয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..