• শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন

জরায়ু অপারেশন করতে গিয়ে মূত্রথলি কেটে ফেলল ডাক্তার

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৫৬ বার পঠিত

জরায়ু অপারেশন করতে গিয়ে মূত্রথলি কেটে ফেলল ডাক্তার

অনলাইন –জরায়ু অপারেশন করতে গিয়ে মূত্রথলি কেটে ফেলল ডাক্তার
গৃহবধূ হাফিজা

জরায়ু অপারেশন করতে গিয়ে মূত্রথলি কেটে ফেলল ডাক্তার। এতে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার পূর্ব নড়াইল গ্রামের গৃহবধূ হাফিজা বর্তমানে নিজ বাড়িতে বিনা চিকিৎসায় দু:সহ জীবন কাটাচ্ছেন।

জানা যায়, হাফিজার জরায়ুতে সমস্যা দেখা দিলে সে হালুয়াঘাট উপজেলার ধারা বাজারে আশ-শিফা মেডিসিন ভাণ্ডারের প্রো. ডা. মো. নাছির উদ্দিনের স্মরণাপন্ন হন। পরে নাসির উদ্দিন তাকে ময়মনসিংহের ভাটিকাশরস্থ আল-হেরা হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পাঠান। আল-হেরা হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষার পর রোগীকে জানায়, তার জরায়ুতে ঘা হয়েছে। জরুরিভিত্তিতে অপারেশন করতে হবে। না করলে এটা তার জীবন নাশের কারণ হতে পারে।

এরপর হতদরিদ্র হাফিজার পরিবার টাকা-পয়সা সংগ্রহ করে ওই আল-হেরা ডায়াগনস্টিক সেন্টারেই অপারেশন করান। অপারেশনের পর এক পর্যায়ে তার অবস্থার অবনতি হলে সে আবার আল-হেরাতে দেখাতে গেলে আল-হেরা কর্তৃপক্ষ তার সাথে দুর্ব্যবহার করে জোরপূর্বক তার চিকিৎসার কাগজপত্র রেখে বিদায় করে দেয়। পরে এক আত্মীয়ের মাধ্যমে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে ডাক্তাররা তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, ভুল চিকিৎসায় হাফিজার মূত্রথলি কেটে ফেলা হয়েছে। এ ব্যাপারে তারা তাকে সংশ্লিষ্ট ডাক্তারের বিরুদ্ধে মামলা করার পরামর্শ দেন। বর্তমানে হাফিজা তার নিজ বাড়িতে দুর্বিসহ জীবন কাটাচ্ছেন। পানি পান করার সাথে সাথেই তা জরায়ু দিয়ে বের হয়ে যায়।
এ বিষয়ে আল হেরা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিচালক মো. আব্দুল কাদের খোকার নিকট জানতে চাইলে তিনি ডাক্তারের ভুল চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, আমাদের কাছে আনলে মূত্রব্যাগ লাগিয়ে দিতে পারব। আর তিন মাস পার হলে তাকে ঢাকায় চিকিৎসা নিতে হবে। এছাড়া আমাদের আর কিছু করার নেই। এ ব্যাপারে হাফিজার স্বামী দীর্ঘদিনের অসুস্থ রোগী জহুর উদ্দিন বলেন, আমি এই ভুল চিকিৎসার সুষ্ঠু বিচার চাই।
খবর-বিডি প্রতিদিন

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..