• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৩ অপরাহ্ন

চীনে তটস্থ তাইওয়ান, অভয় দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১
  • ১২

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

তাইওয়ানকে রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র বদ্ধপরিকর বলে জানিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন। যে কোনো পরিস্থিতিতে পাশে থাকার কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্র। এদিকে চীনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হওয়ায় তাইওয়ান কোনোভাবেই জাতিসংঘের সদস্য হওয়ার যোগ্যতা রাখে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে বেইজিং।

চীন ও তাইওয়ানের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ায় চরম আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে অঞ্চলটির বাসিন্দারা।

সম্প্রতি তাইওয়ানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে মহড়া চালায় চীনা যুদ্ধবিমান। এরপরই তাইওয়ানকে পুনরেকত্রীকরণ হতে হবে বলে মন্তব্য করেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তবে চীনা প্রেসিডেন্টের ওই বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট বলেন, বেইজিংয়ের কোনো চাপের কাছেই তারা নতি স্বীকার করবে না।

তাদের এমন পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে উত্তেজনার পারদ বেড়েই চলেছে। এমন পরিস্থিতিতে চরম হুমকির মধ্যে রয়েছেন তাইওয়ানের বাসিন্দারা। যে কোনো সময় যুদ্ধের আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না তারা।

তারা মনে করেন, তাইওয়ান সরকারের সামরিক শক্তি আরও বাড়ানো উচিত। চীন যুদ্ধে জড়ালে তার প্রস্তুতি তাইওয়ানের থাকা দরকার।

তাইওয়ানের সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করলেও তাদের অভয় দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে পেন্টাগন মুখপাত্র বলেন, যেকোনো পরিস্থিতিতে তাইওয়ানের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, তাইওয়ানকে লক্ষ্য করে চীন যেভাবে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে তাতে আমরা চরম উদ্বিগ্ন। তাদের এমন তৎপরতা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। আমরা তাইওয়ানের পাশে থাকব।

এদিকে তাইয়ানকে কোনোভাবেই স্বাধীন হতে দেওয়া হবে না বলে আবারও সাফ জানিয়ে দিয়েছে বেইজিং। চীনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হওয়ায় তাইওয়ান কোনোভাবেই জাতিসংঘের সদস্য দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পাবে না বলে জানায় চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..