• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:০১ অপরাহ্ন

ঢাবির হল খুলছে আজ, মানতে হবে যেসব নির্দেশনা

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৮

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর খুলে দেওয়া হল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল। মঙ্গলবার (০৫ অক্টোবর) সকাল ৮টা থেকে থেকে নিজ নিজ হলে উঠতে শুরু করেছেন শিক্ষার্থীরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হলে শুধু স্নাতক শেষ বর্ষ এবং স্নাতকোত্তরের আবাসিক শিক্ষার্থীরা উঠতে পারছেন।

শিক্ষার্থীদের আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ করে নিতে সব ধরনের প্রস্তুতি আগেই সম্পন্ন করেছিল হল প্রশাসন। ১৮ মাস পর হলে উঠতে পেরে উচ্ছাস দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে। এসময় ফুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগো সংবলিত মাস্ক দিয়ে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে দেখা গেছে।

এর আগে এক বিজ্ঞপ্তিতে ঢাবি প্রশাসন জানায়, পূর্বঘোষিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, শুধু স্নাতক শেষ বর্ষ এবং স্নাতকোত্তরের যে সকল আবাসিক শিক্ষার্থী অন্ততঃ ‘কোভিড-১৯’-এর প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছে, তারা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে টিকা গ্রহণের কার্ড/সনদ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈধ পরিচয়পত্র সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দেখিয়ে আগামী ৫ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে থেকে নিজ নিজ হলে উঠতে পারবেন।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বিজয় একাত্তর হল ও সকাল সাড়ে ১০টায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল পরিদর্শন করবেন।

এরইমধ্যে অনুমতি ব্যতীত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি আবাসিক হলের তালা ভেঙে হলে প্রবেশ করেছেন বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। তবে হল কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতীত যারা হলে প্রবেশ এবং অবস্থান করছে, তাদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডের জন্য কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, এই মর্মে আগামী ৭ অক্টোবরের মধ্যে জবাব চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঢাবি প্রশাসন আবাসিক হল ব্যবহারে বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। এরমধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো-
কক্ষের বাইরে গেলে সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে নিয়মিত ও সার্বক্ষণিক সঠিক নিয়মে নাক-মুখ ঢেকে মাস্ক পরিধান করতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি পালনের জন্য সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী পরস্পরের কাছ থেকে কমপক্ষে এক মিটার (তিন ফুট) শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হব। কোনো কক্ষের মেঝেতে শোয়া যাবে না, এক বিছানায় একাধিক ব্যক্তি শোয়া যাবে না। কেবলমাত্র আবাসিক ও দ্বৈতাবাসিক শিক্ষার্থীরা হলে অবস্থান করতে পারবে। কোনো বহিরাগত বা বাইরে থেকে আসা কাউকে কক্ষে অবস্থান করতে দেওয়া যাবে না।

শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ কক্ষ এবং কক্ষের প্রয়োজনীয় আশপাশ সবসময় নিজ দায়িত্বে পরিষ্কার রাখতে হবে। এ ক্ষেত্রে হল প্রশাসন সহযোগিতা প্রদান করবে।

হল ডাইনিং, ক্যান্টিন, মেস, দোকান, সেলুন, রিডিংরুম, অডিটোরিয়াম, টিভিরুম, অতিথিকক্ষ, পাঠাগার, মসজিদ ও উপাসনালয়ে ভিড় করা যাবে না। এসব স্থানে শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বিধি অনুসরণ এবং মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। ডাইনিংয়ে পালাক্রমে খাবার খেতে হবে।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত অতিথিকক্ষে শিক্ষার্থীদের সমাবেশ বন্ধ রাখতে হবে। বেড়াতে ও ঘুরতে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। সভা-সমাবেশ, রেস্তোরাঁ, পার্টি ও গণপরিবহন এড়িয়ে চলতে হবে।

উল্লেখ্য, মহামারি করোনার কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে দফায় দফায় বন্ধ বাড়িয়ে চলতি মাসের ১২ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হয়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..