• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:৫০ অপরাহ্ন

ব্রিটেনের ‘রেড লিস্ট’ থেকে সরল বাংলাদেশের নাম

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৭

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ব্রিটেন ভ্রমণের রেড লিস্ট থেকে নাম সরল বাংলাদেশের। এর ফলে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্য থেকে প্রবেশ করলে হোটেল কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না।

আগামী ২২ সেপ্টেম্বর থেকে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হচ্ছে। এই সিদ্ধান্তে খুশি ব্রিটিশ প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

আগামী ২২ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশসহ বিশ্বের আটটি দেশকে ব্রিটেনের রেড লিস্ট থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে। বাংলাদেশ ছাড়া বাকি দেশগুলো হলো- তুরস্ক, পাকিস্তান, মালদ্বীপ, মিসর, শ্রীলঙ্কা, কেনিয়া এবং ওমান। যুক্তরাজ্যের ট্রান্সপোর্ট সেক্রেটারি গ্রান্ট শ্যাপস এ ঘোষণা দেন। আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ব্রিটেনে ভ্রমণের বর্তমান ট্রাফিক লাইট সিস্টেম বাতিল করা হবে এবং এগুলোর পরিবর্তে শুধু লাল তালিকা থাকবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ট্রান্সপোর্ট সেক্রেটারি গ্রান্ট শ্যাপস বলেন, আমরা নতুন সহজ কিছু উপায়ে ভ্রমণের ব্যাপারটিকে আরামদায়ক করতে চাইছি।

সম্প্রতি ব্রিটেনে সফরকালে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিষয়টি নিয়ে ব্রিটেন সরকারের উচ্চপর্যায়ে কথা বলেন। ওই সময় অতিঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশেকে সরানোর অনুরোধ জানান। অবশেষে বাংলাদেশকে ভ্রমণের রেড লিস্ট থেকে বাদ দেওয়ায় ব্রিটিশ সরকারকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেন, এটা সুখবর যে ব্রিটিশ সরকার আমাদের অনুরোধে রেড অ্যালার্ট থেকে আম্বারে নিয়ে এসেছে।

বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে আটকেপড়া ব্রিটিশ নাগরিকরা দেশে ফিরতে পারবেন, ভ্রমণের জন্য তাদের অতিরিক্ত অর্থ খরচ করতে হবে না। এর ফলে ব্রিটেনের পর্যটন খাত গতিশীল হওয়ার আশা সংশ্লিষ্টদের। দুই দেশের মধ্যে ব্যবসায়িকসহ নানা পারস্পরিক বিষয়গুলোর ক্ষেত্রে আরও গতিশীলতা আসবে বলে মনে করছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

একজন বলেন, হঠাৎ করে যখন বাংলাদেশকে আম্বার লিস্টে নিয়ে এসেছে আমাদের প্যাসেঞ্জারদের মধ্যে একটা খুশির জোয়ার দেখা যাচ্ছে।

আরেকজন বলেন, এখন যেমন আসা যাওয়ার মাধ্যমে যেভাবে ব্যবসায়ীরা লাভবান হচ্ছে এতে সবাই উপকৃত হবে।

ক‌রোনাভাইরা‌সের প্রকোপ বাড়তে থাকায় চল‌তি বছ‌রের এপ্রিল মাসের শুরুর দিকে ব্রিটেন সরকার বাংলা‌দেশকে রেড‌লিস্টে যুক্ত ক‌রে। এতে করে বাংলাদেশে আটকে পড়ে যায় বিপুলসংখ্যক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি।

ব্রিটেনের লাল তালিকায় থাকা দেশগুলো হলো, আফগানিস্তান, অ্যাঙ্গোলা, আর্জেন্টিনা, বাহরাইন, বলিভিয়া, বতসোয়ানা, ব্রাজিল, বুরুন্ডি, কেপ ভার্ডে, চিলি, কলোম্বিয়া, কঙ্গো, কোস্টারিকা, কিউবা, ডমিনিক রিপাবলিক, ইকোয়েডর, মিসর, ইরিত্রিয়া, সোয়াজিল্যান্ড, ইথিওপিয়া, ফরাসি গায়ানা, গায়ানা, হাইতি, ইন্দোনেশিয়া, কেনিয়া, লেসোথো, মালাউই, মালদ্বীপ, মঙ্গোলিয়া, মোজাম্বিক, মিয়ানমার, নামিবিয়া, নেপাল, ওমান, পাকিস্তান, পানামা, পেরাগুয়ে, পেরু, ফিলিপিন্স, রুয়ান্ডা, সিসিলিস, সিয়েরা লিওন, সোমারিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, উরুগুয়ে, ভেনিজুয়েলা, নামিবিয়া ও জিম্বাবুয়ে।

এর আগে রোববার থেকে ভারত, বাহরাইন, কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতকে লাল তালিকা থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। অ্যাম্বার তালিকায় থাকা দেশগুলোর নাগরিকরা পুরোপুরি টিকা না নিলে অন্তত ১০ দিন সেলফ-আইসোলেশনে থাকতে হবে।

লাল তালিকায় থাকা দেশগুলো থেকে কেউ ইংল্যান্ডে আসলে তাকে ১০ দিন সরকার নির্ধারিত হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। দেশটিতে ঢোকার দ্বিতীয় ও অষ্টম দিনে তাদের করোনার পরীক্ষা করতে হবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..