• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন

রহস্যেই ১২৪৫ মামলা

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬১

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

অধিকাংশ খুনের ঘটনা । মিলছে না ক্লু । গোলকধাঁধায় কর্মকর্তারা

পাঁচ বছর আগে রাজধানীর রামপুরায় মহানগর আবাসিক এলাকার নিজ বাসায় খুন হন আইনজীবী ফাহমিদা আক্তার মিথুন। ঘটনাস্থলে তার হাত-পা বাঁধা লাশ পড়ে থাকে। ঘটনার এত দিনেও পুলিশ উদঘাটন করতে পরেনি হত্যা রহস্য। দীর্ঘ তদন্ত শেষে কোনো কূলকিনারা না পেয়ে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। ৩১ মে রাজধানীর কলাবাগানে গ্রিন লাইফ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. সাবিরা রহমান লিপি হত্যাকান্ডের তিন মাস অতিবাহিত হলেও এর রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। এটি খুন, নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু এ নিয়েই ধোঁয়াশায় পুলিশ ও গোয়েন্দারা। থানা পুলিশ হয়ে মামলাটি এখন তদন্ত করছে পিবিআই। আইনজীবী ফাহমিদা বা চিকিৎসক সাবিরা রহমানের ঘটনা দুটি নয়, গত কয়েক বছরে রহস্যের জালে আটকে আছে ১ হাজার ২৪৫ মামলার তদন্ত। এর মধ্যে অধিকাংশই খুনের ঘটনা।

পাঁচ বছরেরও বেশি সময়ের আগে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া আলোচিত অন্তত ১৫ খুনের রহস্য এখনো উদঘাটন করতে পারেনি সিআইডি। এর মধ্যে পাঁচটির রহস্য উদঘাটন করতে না পেরে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদনও দিয়েছে সংস্থাটি।

এসব ঘটনার রহস্য উন্মোচন না হওয়ায় বিচারও হচ্ছে না। নিহতদের স্বজনরা বলছেন, থানা পুলিশ আর আদালতে ঘুরতে ঘুরতে তারা দিশাহারা। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) সূত্র জানিয়েছে, এ সংস্থায় সারা দেশের ক্লু লেস মামলা তদন্তাধীন আছে ১ হাজার ২৪৫টি। এর মধ্যে বরিশাল বিভাগের ১৫৩টি, ঢাকা বিভাগের ৪২৭টি, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে ৩২৬টি, রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগে তদন্তাধীন আছে ৩৩৯টি মামলা। এদিকে সিআইডিতে দুই শর বেশি ক্লু লেস মামলা তদন্তাধীন আছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে পিবিআইর প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার বলেন, ‘এসব মামলার রহস্য উদঘাটনে আমরা আশাবাদী। আর এই ক্লু লেস মামলার রহস্য উদঘাটনের জন্য দীর্ঘ সময়ের দরকার, ডেডিকেটেট ইনভেস্টিগেটর দরকার এবং অব্যাহত তদারকির দরকার। সবকিছু নিয়ে আমরা কাজ করি।

বিশিষ্ট সুরকার ও গীতিকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী হওয়ার পর তার ছোট ভাই মিরাজ আহমেদ খুন হন ২০১৩ সালের ৯ মার্চ। রাজধানীর খিলক্ষেত কুড়িল বিশ্বরোডের রেললাইনের পাশ থেকে মিরাজ আহমেদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর খুনের রহস্য উদঘাটনের জন্য গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি) তদন্তভার দেওয়া হয়। তারপর সিআইডির কাছে তদন্তভার ন্যস্ত করা হয়। তদন্তে কোনো অগ্রগতি না পেয়ে ২০১৫ সালের ৩১ আগস্ট আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেন সিআইডির পরিদর্শক রেজাউল করিম। ২০১৫ সালের ১৩ মে পল্লবীতে নিজ ফ্ল্যাটে খুন হন গৃহবধূ সুইটি আক্তার ও তার মামা আমিনুল ইসলাম। একই বছর বাসা থেকে উদ্ধার হয় আইনজীবী ফাহমিদা আক্তারের লাশ। ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর মগবাজারের মধুবাগে বাসার ভিতর থেকে ডলি রানী বণিক নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়। ২০১২ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর হাজারীবাগের বাসায় ১২ বছরের স্কুলছাত্রী তাসনিম রহমান করবীকে শ্বাসরোধে ও গলা কেটে হত্যা করা হয়। ২০১৪ সালের ২৭ আগস্ট পূর্ব রাজাবাজারে নিজ বাসায় খুন হন টেলিভিশনে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের উপস্থাপক মাওলানা নুরুল ইসলাম ফারুকী।

ফাহমিদা খুনের বিষয়ে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (ঢাকা মেট্রো-ইস্ট) কানিজ ফাতেমা এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘খুনের রহস্য উদঘাটনে আমরা অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু কিছুই করতে পারিনি। তাই আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে চলতি বছর। তবে আমরা আদালতকে জানিয়েছি, যদি ভবিষ্যতে কোনো ক্লু বের হয় তাহলে এ মামলা পুনরুজ্জীবিত করা হবে।’ সুইটি আক্তার ও আমিনুল ইসলামের খুনের মামলা তদন্তের বিষয়ে একই কথা বলেছেন বিশেষ পুলিশ সুপার (ঢাকা মেট্রো-ওয়েস্ট) সামসুন নাহার। স্কুলছাত্রী করবীর বিষয়ে একই কথা জানিয়ে বিশেষ পুলিশ সুপার (ঢাকা মেট্রো-সাউথ) মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘ফরুকী হত্যা মামলাটি মাস খানেক আগে তারা তদন্তভার পেয়েছেন। হোতাদের খুঁজে বের করতে তারা তদন্ত অব্যাহত রেখেছেন।’

২০১৩ সালের ২১ ডিসেম্বর গোপীবাগের বাসায় লুৎফর রহমান ফারুকসহ ছয়জন খুন হন। সেই ঘটনায় করা মামলার তদন্ত আট বছরেও শেষ হয়নি। মামলাটি বর্তমানে তদন্ত করছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ২০ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী আবু বকর আবুর লাশ পাওয়া যায় রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীতে। ২২ নভেম্বর রাতে কেরানীগঞ্জ থানার ফেসবুক পেজে লাশটি দেখে আবু বকর আবুর লাশ শনাক্ত করেন তার ভাতিজা হুমায়ূন কবির। মামলাটির এখনো কোনো ক্লু বের করতে পারেনি তদন্ত সংস্থা। এর রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পিবিআইর ঢাকা জেলা ও যশোর জেলা। গত বছর ১৪ মার্চ আশুলিয়ার নবীনগরে বাসের বাক্সে ট্রলি ব্যাগের ভিতর থেকে অজ্ঞাত এক নারীর (৩০) লাশ উদ্ধার করা হয়। ২০১৯ সালের ৪ ডিসেম্বর আশুলিয়ার রাঙামাটিয়া ব্রিজের নিচ থেকে উদ্ধার হয় ২৬ বছর বয়সী এক নারীর লাশ। একই বছর ৪ আগস্ট সাভার ডেইরি ফার্মের পাশের খাল থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার হয়। এসব ঘটনার রহস্য উদঘাটনে তদন্ত করছেন পিবিআইর ঢাকা জেলার কর্মকর্তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..