• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন

১০ বছর ঘুরেও হয়নি এনআইডি’র ভুল সংশোধন

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৯

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ঘুরেও করতে পারেননি জাতীয় পরিচয়পত্রের ভুল সংশোধন। অনেকেই আবার ১০ থেকে ১৫ বার এসেও পাননি নতুন ও হারানো এনআইডি। চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে নাগরিকরা হন নানা হয়রানি আর বিড়ম্বনার শিকার। টাকা না দিলে সেবা গ্রহিতাদের অভিযোগের কোনো সমধান হয় না।

প্রকৃত জন্ম সাল ১৯৮৮ হলেও জাতীয় পরিচয়পত্রে ভুলে এসেছে ৬৭। ভুল সংশোধনে দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ঘুরছেন চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের এ কক্ষ সেই কক্ষ। ঘুরতে ঘুরতে নানা হয়রানির পর অবশেষে ক্লান্ত নগরীর হালিশহরের বাসিন্দা জাবেদ নামে একব্যক্তি।

মো. জাবেদ বলেন, কাল আসো পরশু আসো, এভাবে আমি দশ বছর ধরে এখানে ঘুরছি। এখন পর্যন্ত এ কার্ডটার কোনো সুরাহা হয়নি।

একইভাবে ভোগান্তির শিকার আবদুল মান্নান নামের একব্যক্তিও। এনআইডিতে বাবার নাম ভুলে শরীফ মিয়ার পরিবর্তে এসেছে সবুর মিয়া। এক বছর ধরে অন্তত ১০ বার আসা-যাওয়া করেও হয়নি কোনো সুরাহা।

আবদুল মান্নান বলেন, রওজানের অফিস বলে আমরা এখান থেকে পাঠিয়ে দিয়েছি, এটা আমার কাজ না, লাভ লেনে অফিসারের সঙ্গে আমরা দেখা করতে পারিনা। এখানে কতগুলো কর্মচারী আছেন, তারা বলেন এখানে আবেদনপত্র রেখে চলে যাও।

চটগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে প্রতিদিন শতশত প্রবাসী ও সাধারণ মানুষ নতুন ও হারানো এনআইডিসহ নানা সমস্যা নিয়ে এসে হচ্ছেন বিড়ম্বনার শিকার। তাদের অভিযোগ টাকা না দেওয়ায় অহেতুক হয়রানি করছে তাদের।

ভোগান্তির কথা স্বীকার করে এর পেছনে নানা যুক্তি তুলে ধরে কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, কিছু কিছু সংশোধনী আছে, যেগুলো তদন্ত ছাড়া সিদ্ধান্ত দেওয়া যায় না। সংশ্লিষ্ট উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয় সেগুলো। তারা রিপোর্ট দিলে সেটার ভিত্তিতে এবং ওই ব্যক্তির অন্যান্য কাগজপত্রে মিলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..