• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন

জনশুমারির মাস্টারপ্ল্যানে পরিবর্তন, জানেন না পরিকল্পনামন্ত্রী

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ২৬

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

বিতর্ক পিছু ছাড়ছেই না জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রকল্পের। এবার বদলে ফেলা হয়েছে মাস্টারপ্ল্যান আর প্রকল্প থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের গণনার পরিকল্পনাও।
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান

প্রবাসীদের গণনা করা অসম্ভব দাবি করে প্রকল্প পরিচালক বলছেন, প্রকল্পের মাস্টারপ্ল্যান-ই ছিল ভুল। তবে এসবের কিছুই জানেন না উল্লেখ করে প্রকল্পে কী কী পরিবর্তন আনা হয়েছে তা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

সাত দিনের একটা প্রকল্প কিন্তু আলোচনা-সমালোচনা চলছে প্রায় দুই বছর ধরে। জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন পাওয়ার পর তখনকার প্রকল্প পরিচালক বেশ ঘটা করেই বলেছিলেন বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা এক কোটির বেশি প্রবাসীকে বাদ দিয়ে আর জনশুমারি নয়।

গত বছরে ২৩ আগস্ট বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস)-জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রকল্পের সাবেক পরিচালক জাহিদুল হক সরদার জানিয়েছিলেন এবারই প্রথম প্রবাসীদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে। কিন্তু করোনার কারণে এক বছর সময় পেছানোর মধ্যেই বদলেছে পিডি। যার প্রভাব দেখা গেল প্রকল্পের মাস্টারপ্ল্যানে। যেখান থেকে এবার বাদ দেওয়া হয়েছে প্রবাসীদের গণনার বিষয়টি।

প্রকল্প পরিচালকের দাবি অনুযায়ী, বছরের পর বছর বিভিন্ন আলাপ-আলোচনা আর সরকারি অর্থ খরচে তৈরি করা মাস্টারপ্ল্যান-ই নাকি ভুল!

জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রকল্পের পরিচালক কবির উদ্দিন আহমেদ বলেন, এটা আসলে ফিজিবল না, কোনোভাবেই কোনো অবস্থাতেই ফিজিবল না। কোনো দেশ এভাবে করে না। কোনো দেশের অভিজ্ঞতা নেই যে, প্রবাসীদের লোকাল এলাকায় গণনা করে হিসাব দেবে।

তাহলে আগে যে প্রজেক্ট প্রোপ্রোজল নেওয়া ছিল সেটা ভুল ছিল-সাংবাদিকের এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, হ্যাঁ এটা সেটা ভুল ছিল। শুধু এক কোটি প্রবাসীই নয় বরং গণনার আওতায় আনার কথা ছিল দেশে কর্মরত বিদেশি নাগরিকদেরও।

জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রকল্পের সাবেক পরিচালক জাহিদুল হক সরদার সেই সময় আরো জানিয়েছিলেন, বিদেশি যারা আমাদের দেশে থাকেন তাদের কেউ আমরা গণনায় অন্তুর্ভুক্ত করব। কিন্তু মাস্টারপ্ল্যানে এমন বিশাল পরিবর্তন আনা হয়েছে পরিকল্পনামন্ত্রীর অজ্ঞাতসারেই। এমন সিদ্ধান্তে বিস্ময় প্রকাশ করে মন্ত্রী বলছেন, জবাব চাওয়া হবে বিবিএসের কাছে।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, তারা পরিবর্তন করেছে আমার জানা ছিল না। আপনার কাছ থেকে জানলাম। পরিসংখ্যান বিভাগ বিদেশিদের আমাদের লোক গুনবে না, এই যে সিদ্ধান্তটা এটা আমার কাছে এসে পৌঁছায়নি বা আমি শুনিনি। এটা খোঁজ নেওয়ার বিষয়।

২০১৯ সালের ২৯ অক্টোবর ১ হাজার ৭৬১ কোটি ৭৯ লাখ টাকা ব্যয়ের ৬ষ্ঠ জনশুমারি প্রকল্পের অনুমোদন দেয় একনেক। এর আগের ৫ দফায় যার নাম ছিল আদমশুমারি। সাত দিনে চার কোটি পরিবারের তথ্য সংগ্রহ করতে দেশের ১৬ কোটি মানুষের জন্য এবার মাথাপিছু ১১০ টাকা করে খরচ করবে সরকার।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..