• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন

ভারত গুটিয়ে গেল ৭৮ রানে, অ্যান্ডারসনের ৬ রানে ৩ উইকেট

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট, ২০২১
  • ৪৬

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

 

জো রুট এলবিডব্লুর রিভিউটা নিলেন যেন দর্শকদের একটু বিনোদন দিতেই!

স্যাম কারেন দাঁড়িয়ে ছিলেন হ্যাটট্রিকের সামনে। ভারতের শেষ ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ সিরাজ নিশ্চিতভাবেই ব্যাটে লাগিয়েছিলেন বলটা। তবু ইংল্যান্ড এলবিডব্লুর আবেদন করল, মাঠের আম্পায়ার আউট দেননি দেখে রিভিউও নিল! কিন্তু রিভিউতে টিভি আম্পায়ার রিচার্ড ইলিংওর্থ আল্ট্রা-এজ দেখারও প্রয়োজনবোধ করেননি।

তবে হেডিংলিতে প্রথম দিনের প্রথম ইনিংসের চিত্রটা রুটের নেওয়া ওই রিভিউয়ের মতোই—ভারতকে নিয়ে ছেলেখেলা করেছে ইংল্যান্ড! টস জিতে ব্যাটিং নিয়ে যে প্রথম ইনিংসে ৪০.৪ ওভারে ৭৮ রানেই গুটিয়ে গেছে বিরাট কোহলির দল! ৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন।

ইংল্যান্ডের অন্য ভেন্যুর তুলনায় হেডিংলিতে নিশ্চিতভাবেই সুইং একটু বেশি হয়। তবে কোহলি নিলেন ব্যাটিংয়ের সাহসী সিদ্ধান্ত, হয়তো লর্ডসে দারুণ জয়ের আত্মবিশ্বাসে ভর করেই। তবে অ্যান্ডারসনের সামনে শিগগিরই অসহায় হয়ে পড়ল ভারতের টপ অর্ডার। এরপর ওলি রবিনসন এসে আঘাত করলেন। ক্রেইগ ওভারটন করলেন জোড়া উইকেটের মেডেন ওভার। স্যাম কারেন অনুসরণ করলেন তাঁকে। এরপর ওভারটন এসে নিলেন আরেকটি—ভারতের ‘খেল খতম’ এভাবেই! ৬ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন অ্যান্ডারসন

১৯৭৪ সালে ৪২ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল ভারত, এরপর ইংল্যান্ডের মাটিতে তাদের সর্বনিম্ন স্কোর এটিই। সব মিলিয়ে টেস্টে এটি ভারতের ৯ম সর্বনিম্ন স্কোর।

অ্যান্ডারসন শুরুটা করেছিলেন আগের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতা লোকেশ রাহুলকে ফিরিয়ে। গুড লেংথে ইনসুইং, ইনসুইং, ইনসুইংয়ের পর অ্যান্ডারসন গেলেন ফুল লেংথে, রাহুল গেলেন ড্রাইভ করতে। তবে অ্যান্ডারসন যে সুইংয়ের রাজা! বলটা শেষ মুহূর্তে বাঁক নিল, বাঁক নিতে নিতেই ছুঁয়ে গেল রাহুলের ব্যাট। অ্যান্ডারসনের পরের শিকার চেতেশ্বর পুজারা। বলটা যাচ্ছিল পুজারার দিকেই, ব্যাট বাড়ানো ছাড়া যেন কিছু করার ছিল না তাঁর! যা হওয়ার তা-ই হলো, এবারও ক্যাচ লুফে নিয়ে বাকি কাজটা সারলেন জস বাটলার।

অ্যান্ডারসনের বুনো উল্লাস আবার দেখা গেল খানিক বাদে। এবার তিনি যে পেলেন বিরাট কোহলির উইকেটও। এবারও ফুল লেংথে ড্রাইভে প্রলুব্ধ করেছিলেন কোহলিকে, ভারত অধিনায়ক পা দিলেন সে ফাঁদেই। এবারও তাঁর ব্যাটের কানায় লেগে বল গেল বাটলারের গ্লাভসে। এ নিয়ে টেস্টে সপ্তমবার অ্যান্ডারসনের শিকার হলেন কোহলি, ক্যারিয়ারে এতবার তিনি আউট হয়েছেন শুধু নাথান লায়নের বলে। প্রথম স্পেল শেষ করার পর অ্যান্ডারসনের বোলিং ফিগার ছিল এমন: ৮-৫-৬-৩! অ্যান্ডারসন এরপর আর বোলিংয়ে আসেননি।

অ্যান্ডারসনের পর দৃশ্যপটে এলেন ওলি রবিনসন। মধ্যাহ্নবিরতির ঠিক আগে অজিঙ্কা রাহানে তাঁর শিকার—এবারও উইকেটের পেছনে বাটলারের হাতে ক্যাচ। ৪ উইকেটে ৫৬ রান নিয়ে বিরতিতে গিয়েছিল ভারত। অবশ্য উইকেটে আসা-যাওয়ায় ঠিক বিরতি পড়েনি তাদের। বিরতির ঠিক পরপরই রবিনসনের অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের বলে ব্যাট চালিয়ে ধরা পড়েছেন ঋষভ পন্ত, এবারও ক্যাচ নিয়েছেন বাটলারই!

ভারত এরপরের ৪ উইকেট হারিয়েছে কোনো রান যোগ করতে না পেরেই। ‘৬৭’ সংখ্যাটা যেন হয়ে উঠেছিল তাদের জন্য অভিশপ্ত। প্রথম ক্রেইগ ওভারটন পরপর দুই বলে ফেরালেন রোহিত শর্মা ও মোহাম্মদ শামিকে। রোহিত এতক্ষণ টিকে ছিলেন, তবে শর্ট বলে শর্ট মিড-অনে ধরা পড়ার আগে ১০৫ বল খেলে ১৯ রানই করতে পেরেছেন তিনি। শামি ক্যাচ দিয়েছেন তৃতীয় স্লিপে।

মাত্র দুজন ভারতীয় ব্যাটসম্যান ছুঁতে পেরেছেন দুই অঙ্ক
এরপর কারেনের পরপর দুই বলে ফিরেছেন রবীন্দ্র জাদেজা ও যশপ্রীত বুমরা। দুজনই হয়েছেন এলবিডব্লু। এরপরই রুট নিয়েছিলেন ওই রিভিউটা। সে দফা বাঁচলেও সিরাজ বেশিক্ষণ টেকেননি। মুখোমুখি হওয়া দশম বলে জায়গা বানিয়ে খেলতে গিয়ে স্লিপে ক্যাচ দিয়েছেন তিনি ওভারটনের বলে। ভারত অলআউট, ইশান্ত অন্যদিকে অপরাজিত ছিলেন ৮ রান করে। ওভারটন শেষ পর্যন্ত ৩ উইকেট নিয়েছেন ১৪ রানে।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..