• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন

আফগানিস্তান নিয়ে কৌশলী অবস্থানে ব্রিটিশ সরকার

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ আগস্ট, ২০২১
  • ২৬

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

আফগানিস্তানের সরকার হিসেবে তালেবানকে বিশ্ব মোড়লদের স্বীকৃতির বিষয়টি এখন আলোচনার তুঙ্গে।

চলমান সঙ্কট মোকাবিলায় ব্রিটেনে সমালোচনার মুখে রয়েছেন বরিস জনসন। আর তাই এই ইস্যুতে কৌশলী ব্রিটিশ সরকার। প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে লন্ডন শহরে। আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থানে সাধারণ ব্রিটিশরা প্রতিবাদমুখর হলেও, বিষয়টি নিয়ে বেশ কৌশলী অবস্থানে রয়েছে বরিস সরকার।

সঙ্কট সমাধানে উপায় খুঁজে বের করার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বলেছেন, প্রয়োজনে তালেবানের সঙ্গে কাজ করবে যুক্তরাজ্য। শুক্রবার (২০ আগস্ট) লন্ডনে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে বরিস জনসন বলেন, ‘আমি মানুষকে আশ্বস্ত করতে চাই, আফগানিস্তানের জন্য একটি সমাধান বের করতে আমাদের রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক প্রচেষ্টা থাকবে। প্রয়োজন হলে অবশ্যই তালেবানের সঙ্গেও আমরা কাজ করব।’ এর আগে তিনি বলেছিলেন, তালেবানদের মূল্যায়ন করা হবে তাদের কাজের মাধ্যমে, কথার মাধ্যমে নয়।
কাবুল বিমানবন্দরের পরিস্থিতি সম্পর্কে জনসন বলেন, সেখানে হাজার হাজার আফগানরা মরিয়া হয়ে দেশ ছাড়া নিয়ে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল, তা ‘কিছুটা ভালোর দিকে যাচ্ছে’।

আফগান ইস্যুতে ব্রিটিশ সরকারের অবস্থান বর্তমানে বেশ সক্রিয়। ইতোমধ্যে বিপুল সংখ্যক আফগান নাগরিককে অভিবাসন সুবিধা দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছে বরিস সরকার। এমনকি জি সেভেনের ভার্চুয়াল বৈঠকেও আফগান ইস্যু গুরুত্ব পাবে এবার।

প্রভাবশালী দেশ হিসেবে আফগান নাগরিকদের অধিকার রক্ষায়, ব্রিটেনকে আগ থেকেই ভূমিকা নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন নিউহ্যাম কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার ব্যারিস্টার নাজির আহমেদ।
তালেবানের কাবুল নিয়ন্ত্রণে নেয়ার পর আফগানিস্তান নিয়ে পাল্টে গেছে সব ধরনের হিসেব-নিকেশ। এই ইস্যুতে সরব বিশ্ব-রাজনীতি। সেইসঙ্গে তালেবানের পুনরুত্থান নিয়ে চিন্তিত পশ্চিমা দেশগুলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..