• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন

বাংলাদেশে পা রাখার আগেই প্রচ্ছন্ন হুমকি নিউজিল্যান্ডের

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ আগস্ট, ২০২১
  • ৩০

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আজ (২৪ আগস্ট) দুপুরেই পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে পা রাখবে নিউজিল্যান্ড দল। দেশটির প্রথম সারির দল এ সফরে না থাকায় শুরু থেকেই বেশ সমালোচনা হচ্ছে। তবে উইলিয়ামসন-বোল্টদের মতো তারকা খেলোয়াড়দের অভাব প্রতিপক্ষ শিবিরকে টের পেতে দেওয়া হবে না বলে খানিকটা হুমকিই দিয়ে রাখলেন কিউই দলের হয়ে অভিষেকের অপেক্ষোয় থাকা রাচিন রবীন্দ্র।
বাংলাদেশে পা রাখার আগেই প্রচ্ছন্ন হুমকি নিউজিল্যান্ডের

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে নিউজিল্যান্ডের স্কোয়াডে নেই তাদের বিশ্বকাপ দলের কোনো সদস্য। দ্বিতীয় সারির এ কিউই দলে সুযোগ পেয়েছেন ফিন অ্যালেন, বেন সিয়ার্সের মতো তরুণ ক্রিকেটাররা। নিউজিল্যান্ডের জার্সিতে এরইমধ্যে অভিষেক হয়েছে অ্যালেনের। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষেই আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু করবেন বেন সিয়ার্স।

বাংলাদেশে পা রাখার আগে তাদের দুজনের শক্তির জায়গায় কথা বলে বাংলাদেশকে প্রচ্ছন্ন ‘হুমকি’ দিয়ে রাখলেন রাচিন রবীন্দ্র। অ্যালেনের ব্যাটিং সামর্থ্য প্রসঙ্গে রাচিন বলেন, সে বর্তমান বিশ্বের বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানদের অন্যতম একজন। তার ব্যাটিং দেখতে সত্যিই অবিশ্বাস্য। ঘরোয়া লিগে তার বিপক্ষে ও একই দলে প্রচুর ক্রিকেট খেলেছি এবং আমি তার সঙ্গে ব্যাটিং উপভোগ করি।

এদিকে নিউজিল্যান্ডের পেস বোলিং ইউনিট বরাবরই বেশ সমৃদ্ধ। এ সিরিজে কাইল জেমিসন, ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদিরা না আসলেও বাংলাদেশের বিপক্ষেও তাদের শক্তির বড় জায়গা কিউই পেসাররা। যেখানে নতুন সেনসেশন বেন সিয়ার্স। তার দুর্দান্ত গতি কাবু করতে পারে সাকিব-সৌম্যদের। এমনটাই মনে করছেন তারই সতীর্থ রবীন্দ্র।

সিয়ার্সের বোলিংয়ের প্রশংসা করে তিনি বলেন, সিয়ার্সকে নেটে খেলতে হলেও আপনাকে প্রস্তুতি নিয়েই খেলতে হবে। সে যুবদল থেকেই দারুণ গতিতে বল করে আসছে। আমি এরইমধ্যে অনেকবার তার মুখোমুখি হয়েছি। সে অবশ্যই এখানে ভালো কিছু করবে।

অন্যদিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলা কঠিন হবে বলে মনে করছেন কিউই তারকা খেলোয়াড় হেনরি নিকোলস। ক্রিকেট বিষয়ক জনপ্রিয় সাইট ক্রিকইনফোর সঙ্গে সোমবার (২৩ আগস্ট) নিকোলস বলেন, আপনারা হয়তো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের খেলা দেখেছেন। সম্ভবত ওই সিরিজের সবচেয়ে বড় স্কোরটি ছিল ১৩০ রানের। কিন্তু আমাদের দেশে টি-টোয়েন্টিতে আদর্শ রান হিসেবে ধরা যায় ১৮০-কে। তাই একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে মনে হয়, ওদের ওইরকম কন্ডিশনে খেলাটা কঠিন হবে অনেক। খুব সতর্ক হতে হবে ভালো খেলার ক্ষেত্রে।

এ সিরিজের আগে ৪ টি-টোয়েন্টির মধ্যে সবকটিতেই হেরেছিল টাইগার বাহিনী। অথচ প্রথম দ্বিপাক্ষিক সিরিজে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই হার বরণ করল। হেনরি নিকোলস অবশ্য তাদের প্রস্তুত বলেই মনে করছেন।

তিনি বলেন, নিশ্চিতভাবে আমরা সবাই প্রস্তুত। অস্ট্রেলিয়া ওদের দেশে কীভাবে খেলেছে সেটা দেখাও আমাদের জন্য এক প্রকার অভিজ্ঞতা অর্জন হবে। সাধারণত অজিরা যেভাবে খেলে সেখানেও হয়তো সেটাই চেষ্টা করেছে। কিন্তু সফল হয়নি। কিন্তু আমরা, একটি দল হিসেবে ভালো কিছু শিখতে চাই। কারণ বিগত দুই সপ্তাহে আমরা ক্যাম্পে ভালো সময় কাটিয়েছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..