• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:১২ পূর্বাহ্ন

নাসার বিরুদ্ধে বেজোসের মামলা

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৩ আগস্ট, ২০২১
  • ৫৭

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

মহাকাশযান নির্মাণে বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী ইলন মাস্কের স্পেসএক্সের সঙ্গে ২৯০ কোটি ডলারের চুক্তি করেছে নাসা। আর এতেই খেপে গেছেন আমাজনের মালিক জেফ বেজোস। চুক্তিতে কিছু মৌলিক ত্রুটির কথা উল্লেখ করে নাসার বিরুদ্ধে মামলা করেছে বেজোস।

যদিও নাসা শুরুতে চেয়েছিল দুটি সংস্থার সঙ্গেই চুক্তিতে যেতে। তবে তহবিল ঘাটতির কারণে গত এপ্রিলে দুটির পরিবর্তে একটি সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করে নাসা। আর সেটি হলো স্পেসএক্স। পরে বেজোস ১৩ আগস্ট এই চুক্তির বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেন। পরে গত বৃহস্পতিবার নাসা আর্টেমিস মুন মিশনে সহযোগিতা করার জন্য স্পেসএক্সের সঙ্গে করা চুক্তি সাময়িকভাবে স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়।

রয়টার্স জানিয়েছে, নাসার একজন মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন যে প্রথম আদালতের শুনানি ১৪ অক্টোবর হবে। এদিকে চাঁদের মডিউল তৈরির কাজের ওপর ১ নভেম্বর পর্যন্ত স্থগিতাদেশ কার্যকর থাকবে।

সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৩ আগস্ট ব্লু অরিজিন মার্কিন ফেডারেল আদালতে নাসার বিরুদ্ধে মামলা করে। নাসার ‘মূল্যায়ন’কে চ্যালেঞ্জ করে এটি ‘অবৈধ এবং অনুপযুক্ত’ বলে মামলাটি করা হয়। মামলায় বলা হয়, এপ্রিলে নাসা আর্টেমিস মুন অভিযানের ল্যান্ডার তৈরির জন্য নিলামে সর্বনিম্ন দরদাতা স্পেসএক্সের সঙ্গে ২৯০ কোটি ডলারের চুক্তি করে।

প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়, নিলামে ব্লু অরিজিন এ অভিযানের জন্য ৫৯০ কোটি ডলারের প্রস্তাব জমা দিয়েছিল। অবশ্য সে সময় নাসার ব্যাখ্যা ছিল, মার্কিন কংগ্রেস তহবিল কমিয়ে দেওয়ার কারণে স্পেসএক্সকে নির্বাচন করা হয়। মার্কিন কংগ্রেসে প্রকল্পটির জন্য ৩৩০ কোটি ডলার অর্থ বরাদ্দ প্রস্তাবের মধ্যে মাত্র ৮৫ কোটি ডলার অনুমোদন করা হয়।

এদিকে ব্লু অরিজিন বলছে, নাসা স্পেসএক্সের অফার বেছে নিতে পারে, এমনটা ভেবে তারা আগেই নাসাকে প্রস্তাব দিয়েছিল যে তাদের সঙ্গে চুক্তি করলে ২০০ কোটি ডলার পর্যন্ত খরচ বহন করা হবে। তবে পরে নাসা স্পেসএক্সের সঙ্গেই চুক্তি করে আর বেজোসের অভিযোগটা এখানেই।

নাসার মুখপাত্রের বিবৃতি অনুসারে, স্পেসএক্স আদালতের কার্যক্রমের বিষয়টি পর্যবেক্ষণে রেখেছে। এ ছাড়া মার্কিন নিয়ন্ত্রক সংস্থা গভর্নমেন্ট অ্যাকাউন্টেবিলিটি অফিসও (জিএও) নাসার পক্ষে রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..