• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৬ অপরাহ্ন

শুটিংয়ে অংশ নিতে বাধা নেই পরীমনির

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১
  • ৫৭

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

গ্রেপ্তার হওয়া চিত্রনায়িকা পরীমনির সদস্যপদ স্থগিত করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। শনিবার (৭ আগস্ট) সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর।

তিনি বলেন, ‘শিল্পী সমিতির সদস্য চিত্রনায়িকা পরীমনি দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন। তার মামলাও চলছে। তার ব্যক্তিগত কোনো অনৈতিক বা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের দায়-দায়িত্ব সংগঠন হিসেবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নেবে না। ব্যক্তিগত যাবতীয় কর্মকাণ্ডের দায়িত্ব শুধু তার।’

তিনি আরও বলেন, ‘যেহেতু সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পরীমনিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাই সমিতির সুনাম এবং ভাবমূর্তি রক্ষার্থে সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তার সদস্যপদ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত হয়।’

সদস্যপদ স্থগিত হলেও পরীমনি সিনেমার শুটিংয়ে অংশ নিতে পারবেন। শেষ করতে পারবেন অসমাপ্ত সিনেমার কাজ। এমনটা জানিয়ে মিশা সওদাগর বলেন, ‘স্থগিতাদেশ না ওঠা পর্যন্ত পরীমনি সংগঠনের কোনো কার্যক্রমে আমন্ত্রণ বা অংশ নিতে পারবেন না। তবে তিনি তার অসমাপ্ত সব শুটিং-ডাবিং করতে পারবেন। পরীমনি চাইলে অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে পারবেন। অভিনয় চালিয়ে যেতে পারবেন।’

জানা গেছে, সমিতির গঠনতন্ত্রের ৬-এর ‘খ’ ও ৯-এর ‘গ’ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, সমিতির কোনো সদস্য যদি সমিতির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করে কোনো কাজে লিপ্ত হয় সঙ্গে সঙ্গে তার সদস্যপদ সাময়িকভাবে স্থগিত হবে। তবে আদালতে যদি প্রমাণ হয় তিনি নির্দোষ, তাহলে ফিরে পাবেন পদ। আর যদি দোষী সাব্যস্ত হন, তাহলে আজীবনের জন্য সমিতির সদস্যপদ হারাবেন।

৪ আগস্ট (বুধবার) পরীমনির বনানীর বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযান শেষে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ তাকে আটক করা হয়। পরীমনি বর্তমানে রিমান্ডে আছেন। জিজ্ঞাসাবাদে বিভিন্ন তথ্য দিচ্ছেন তিনি। তার দেওয়া বিভিন্ন তথ্য নিয়ে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পরীমনি গ্রেপ্তারের পর নড়েচড়ে বসেছে ফিল্মপাড়ার বিভিন্ন সমিতিতে।

তাকে আটকের চার দিন পর আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। এর আগে পরীমনির বিষয়ে এক সাক্ষাৎকারে মিশা সওদাগর বলেছিলেন, ‘শিল্পী সমিতি সবসময় শিল্পীদের পাশে থাকবে। এটা ব্যক্তিগত সমিতি না, শিল্পী সমিতি। সভাপতি হিসেবে শিল্পী সমিতির সংবিধান আমাকে সমুন্নত রাখতে হবে। সংবিধান যা বলবে তাই হবে। এ নিয়ে আমি কিছু বলতে পারছি না। সংবিধান পাশ কাটিয়ে যেতে পারব না।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..