• শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০২:০৬ অপরাহ্ন

টিকা নিয়ে সুখবর দিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১
  • ১৬

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ
শিগগিরই দেশে আরও ৮৫ লাখ ২০ হাজার ডোজ করোনা ভ্যাকসিন আসবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। এর মধ্যে জাপান থেকে ২৯ লাখ, চীন থেকে ১০ লাখ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ১০ লাখ ডোজ টিকা আসবে। একইসঙ্গে কোভ্যাক্সের আওতায় মিলবে ৩৬ লাখ ২০ হাজার ডোজ মডার্নার টিকা।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন

সোমবার রাতে (১২ জুলাই) নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেওয়া এক পোস্টে এমন তথ্য জানান মন্ত্রী।
সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের জেনেভা মিশন জানিয়েছে কোভ্যাক্সের মাধ্যমে আরও ত্রিশ লাখ মডার্নার টিকা আসবে যেগুলোর শিপমেন্ট রেডি আছে। জাপান ২৫ লাখের পরিবর্তে ২৯ লাখ অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভ্যাক্সের মাধ্যমে দেবে। চীন সরকার আরও ১০ লাখ সিনোফার্ম ভ্যাকসিন উপহার হিসাবে দেবে।

এছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ১০ লাখ এবং কোভ্যাক্সের অধীনে আরও ৬ লাখ বিশ হাজার ডোজ টিকা আগস্টে দেশে আসবে বলে জানান তিনি।
এদিকে দেশে এখন পর্যন্ত প্রয়োগ করা হয়েছে তিন প্রতিষ্ঠানের কোভিড টিকা। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার-বায়োএনটেক, সিনোফার্মের উৎপাদিত টিকার পর মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) চতুর্থ টিকা হিসেবে দেশে প্রয়োগ করা হচ্ছে মার্কিন প্রতিষ্ঠান মডার্নার টিকা।

দেশে আগের তিন টিকার প্রতিটির ক্ষেত্রেই গণটিকাদান কর্মসূচির আগে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়। এর মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছিল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াসহ টিকা গ্রহীতাদের ওপর মারাত্মক কোনো প্রভাব ফেলে কিনা? তবে এবার ব্যতিক্রম ঘটছে মডার্নার টিকার বেলায়। আজ থেকে রাজধানীসহ দেশের ১২টি সিটি করপোরেশন এলাকায় গণহারে মডার্নার টিকা দেওয়ার কথা থাকলেও অন্য টিকাগুলোর মতো এর কোনো পরীক্ষামূলক পর্যবেক্ষণ হয়নি।

প্রসঙ্গত, ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে কোভিশিল্ডের তিন কোটি ডোজ টিকা কেনার জন্য গত বছরের শেষ দিকে চুক্তি করেছিল বাংলাদেশ। সেই টিকার প্রথম চালান পাওয়ার পর ৭ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে গণটিকাদান শুরু হয়।
কিন্তু দুই চালানে ৭০ লাখ ডোজ পাঠানোর পর ভারত রপ্তানি বন্ধ করে দিলে সংকটে পড়ে বাংলাদেশ। পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় ২৫ এপ্রিল দেশে প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। যারা প্রথম ডোজে কোভিশিল্ড নিয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া যায়নি। এমন পরিস্থিতিতে সরকার চীন ও রাশিয়া থেকে টিকা সংগ্রহের উদ্যোগ নেয়।

গত জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় শিগগিরই ১০ লাখ ৮০০ ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা বাংলাদেশ পাচ্ছে। সেই টিকা জুলাই মাসেই হাতে পাওয়ার সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..