• বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১০:৪০ পূর্বাহ্ন

মাদরাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৬ জুন, ২০২১
  • ৩৬২

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

সোমবার (১৪ জুন) রাতে নির্যাতিতার বাবা বাদী হয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এরই প্রেক্ষিতে আসামি এনায়েতকে মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে।অভিযুক্ত হাফিজ মৌলভী এনায়েত হুসাইন লাবিবকে (৩০) মঙ্গলবার (১৫ জুন) গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছেন জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দস্তগীর আহমেদ।

অভিযোগসূত্রে জানা যায়, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আড়াই বছর যাবত মেয়েটিকে নিয়মিত ধর্ষণ করে আসছে অভিযুক্ত এনায়েত।

জৈন্তাপুর উপজেলার চারিকাটা ইউনিয়নের ভিত্রিখেল পশ্চিম গ্রামে অবস্থিত কুব্বাতুল ইসলাম দারুল হুদা কামালপাড়া কওমি মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটেছে। শিক্ষককের সঙ্গে মাদরাসা ছাত্রীর অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

অভিযুক্ত এনায়েত ওই মাদরাসার হিফজ বিভাগের শিক্ষক এবং একই উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের হরিপুর এলাকার বাগেরখাল গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে।

জানা যায়, অভিযুক্ত এই শিক্ষক ও স্থানীয় একটি মাদরাসার ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অনেকদিন যাবত তাদের অবৈধ শারীরিক সম্পর্কের কথা স্বীকার করলে স্থানীয় সালিশের মাধ্যমে বিচার করে তাদেরকে বিয়ের পিঁড়িতে বসানোর সিদ্ধান্ত হয়।

গত শনিবার (১২ জুন) রাত ১০টা পর্যন্ত কওমি মাদরাসার মুহতামিম ‘ধর্ষক’ শিক্ষককে নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে হাজির না হওয়ায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অভিযুক্ত শিক্ষক ও মাদরাসার মুহতামিম এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। আর অভিযুক্ত মাদরাসা শিক্ষকের ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অসুস্থতার অজুহাতে সালিশে আসেননি। এরপর নির্যাতিতার বাবা বাদী হয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানায় অভিযোগ দাখিল করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..