• বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০৭:২৮ অপরাহ্ন

বাজেটের আগে ফেডারেশনগুলোর সঙ্গে পরামর্শ

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৫ জুন, ২০২১
  • ১০০

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ

করোনাকালে নতুন অর্থবছরের বাজেট অপ্রতুল হলেও সমন্বয় করলে ভালো করা সম্ভব। তবে ক্রীড়া বাজেট করার আগে ফেডারেশনগুলোর সঙ্গে পরামর্শ করে নিলে প্রত্যাশার সঙ্গে প্রাপ্তি কিছুটা হলেও পূরণ করা সম্ভব হতো বলে মনে করেন ক্রীড়া সংগঠকরা। আর ক্রীড়াঙ্গনে খেলা কম থাকায় উন্নত প্রশিক্ষণে অর্থ বিনিয়োগের দাবি অ্যাথলিটদের।

বাজেট আসে, বাজেট যায়। প্রত্যাশা আর প্রাপ্তি মেলে না। ক্রীড়াঙ্গনে ফল নিয়ে আসতে প্রয়োজন হয় বিপুল অঙ্কের টাকার। যা না থাকায় উন্নত প্রশিক্ষণ পাওয়া হয় না। পিছিয়ে যায় বাংলাদেশ। ক্রীড়া সংগঠকরা মনে করেন, ফেডারেশনগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে বাজেট প্রণয়ন করলে অর্থের সুষম বণ্টন সম্ভব।

ক্রীড়া সংগঠক আসাদুজ্জামান কোহিনুর বলেন, যেখানে যেটা প্রয়োজন নেই সেখানে দেওয়া হচ্ছে। কোনো রকম আলোচনা না করেই একটি অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে, সেটা সমাজ বা জাতির কারও কাজে আসে না। এই পরিকল্পনাহীন ও সমন্বয়হীনতার মধ্যে আমাদের থাকা উচিত না বলে আমি মনে করি।   

বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেন, যদি স্পন্সর সংগ্রহ করা যায় তাহলে কিন্তু সরকার ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ওপর থেকে অনেকটা চাপ কমে যায়।   

করোনাকাল থাকবে নতুন অর্থবছরেও। মাঠে খেলা প্রত্যাশার চেয়ে কম। তাই নিজেদের ক্রীড়া দক্ষতা যেন ঝালিয়ে নিতে পারা যায়, সে রকম অনুকূল পরিবেশ চাইলেন অ্যাথলিট রোমান সানা ও মাবিয়ারা।

স্বাধীনতার পর থেকে কখনো করা হয়নি আলাদাভাবে ক্রীড়া বাজেট, ক্রীড়া বিশ্লেষকদের মতে যত দিন পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ ক্রীড়া বাজেট বাস্তবায়ন না হয় তত দিন স্বপ্ন ও বাস্তবতা একসঙ্গে ধরা দেবে না।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..