• সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৪৭ পূর্বাহ্ন

ফেসবুকে ইউএনওর পোস্ট, হারানো নাতনিকে ফিরে পেলেন নানা-নানি

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০

বাংলারজমিন২৪.কম ডেস্কঃ 

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার ইটাখোলা গ্রামের শিশু রিয়া মণি। বয়স আট থেকে নয় বছর। বছর দুয়েক আগে ঢাকার পোস্তগোলা এলাকায় খালার বাসায় বেড়াতে গিয়েছিল সে। সেখান থেকে সে হারিয়ে যায়। রাসেল নামের এক ব্যক্তি তাকে গৃহপরিচারিকা হিসেবে বাসায় নিয়ে যান। গতকাল সোমবার সকালে ঢাকা থেকে বাসে করে রিয়াকে ফুলপুর উপজেলা সদরে ফেলে চলে যান রাসেল।

বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন ফুলপুর উপজেলা পরিষদের সামনে কান্নাকাটি করতে থাকে রিয়া। স্থানীয় লোকজন তার পরিচয় জানতে চাইলে তার বাড়ি ফুলপুরের (ফুলপুর উপজেলা ভেঙে তারাকান্দা উপজেলা গঠিত হয়েছে) ইটাখোলা গ্রামের কথা বলে। জানায়, বাবার নাম নুরুল আমিন ও মায়ের নাম রাবেয়া। সে আরও জানায়, তার মা বেঁচে নেই আর বাবা কোথায় আছেন সে জানে না। এর বেশি কিছু বলতে না পারায় স্থানীয় লোকজন তাঁকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে নিয়ে যান।

ফুলপুরের ইউএনও শীতেষ চন্দ্র সরকার তাঁর সরকারি ফেসবুক পেজে মেয়েটির নাম এবং ঘটনার বর্ণনা লিখে মোবাইল নম্বর উল্লেখ করে একটি পোস্ট করেন। তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন। পাশাপাশি পুলিশ ও জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে হারানো শিশুটির স্বজনের খোঁজ করতে থাকেন তিনি। পরে শিশুটিকে নতুন জামা ও শীতবস্ত্র উপহার দিয়ে ফুলপুর থানায় হস্তান্তর করেন ইউএনও। এর কয়েক ঘণ্টা পর ফুলপুর থানায় যান রিয়ার নানা রমজান আলী ও নানি রহিমা খাতুন। রিয়া তাঁদের চিনতে পারে। জড়িয়ে ধরে কাঁদতে থাকে।

ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমারত হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর আনুষ্ঠানিকতা শেষে শিশু রিয়া মণিকে গতকাল রাতেই তার নানা-নানির কাছে দেওয়া হয়।

ফুলপুরের ইউএনও শীতেষ চন্দ্র সরকার বলেন, বর্তমানে শিশুটি তার নানা-নানির সঙ্গে আছে।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..