• রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৫:৩৩ অপরাহ্ন

চাঁদপুরের ওসিদের মামলার সাক্ষীর হাজিরা নিশ্চিত করার নির্দেশ

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ২২১
ক্যাপশনঃ চাঁদপুরে পুলিশ মেজিস্ট্রেসী কনফারেন্সে সভাপতির বক্তব্য রাখছেন চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নূরে আলম।   
অমরেশ দত্ত জয়
 চাঁদপুরঃ চাঁদপুরের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নূরে আলম বলেছেন,বিচার ব্যবস্থাকে সক্রিয় করতে ওসিদেরকে মামলার সাক্ষীদের হাজিরা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেওয়া হলো।
তিনি গত মাসের এক পরিসংখ্যান শুনিয়ে বলেন,গত মাসে চীফ জুডিসিয়াল কোর্টে ১ হাজার ৬’শ ২৯ জন সাক্ষী হাজির হয়।সেই সাক্ষীদের মধ্যে মাত্র ৬’শ ২৯ জন থানা থেকে এসেছে আর বাকিসব সাক্ষী আদালতের।তাই এই দিকে থানার ওসিদের নজর বাড়াতে হবে।
২৭ আগষ্ট মঙ্গলবার সকালে জেলা জজের সম্মেলন কক্ষে পুলিশ মেজিস্ট্রেসী কনফারেন্সে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন,আমাদের এই পেশা খুব চ্যালেঞ্জিং।তবুও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় আমাদের সবাইকে নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালনে অবিচল থাকতে হবে।তিনি থানার ওসিদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন,বন্ধের দিন ১৬৪ ধারা পাঠাবেন না।বিশেষ করে বিকালে ত নয়-ই।কারন ১৬৪ ধারার জন্য কমপক্ষে ৩ ঘন্টা সময় ব্যয় হয়।
এ সময় তিনি উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তাদের বিভিন্ন কার্যক্রম শুনেন এবং প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দেন।
এ কনফারেন্সে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(হেডকোয়ার্টার) মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন,আমাদের লক্ষ্য সুশাসন দেওয়া।আমরা আপনার দিক-নির্দেশনা মোতাবেক আমাদের কার্যক্রম এগিয়ে নিবো।এ সময় তিনি জিডিতে তদন্ত প্রয়োজন পড়লেও ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন আদালতে দিতে বলায় চীফ জুডিসিয়ালকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।
এ সময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন,অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার মোশাররফ ইউসুফ,সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ শফিউল আলম,কামাল হোসেন,মোঃ মোহছেন ইসলাম।
জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ হাসান জামানের উপস্থাপনায় কনফারেন্সে আরো বক্তব্য রাখেন,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ কফীর উদ্দিন,মোহছেনা ইসলাম,পিবিআই চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শংকর কুমার দাস,চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আনোয়ারুল আজিম,আর এম ও ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল,চাঁদপুর সদর থানার ওসি নাসিম উদ্দিন,কচুয়া থানার ওসি ওয়ালি উল্লাহ ওলি,হাইমচর থানার ওসি জহির,শাহারাস্থি থানার ওসি শাহআলম প্রমুখ।
এ সময় ওসিরা তাদের বক্তব্যে বলেন,থানা সম্পর্কে আমরা সাধারন মানুষের ভয় দূর করতে চাই।সেই সাথে থানায় জিডিতে যদি কোন টাকা নেওয়া হয়।তাহলে সেক্ষেত্রে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানাই।আমরা বিজ্ঞ আদালতের প্রতি সম্মান রেখে আরো গতিশীল কাজ করবো।এ সময় পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।এর আগে পবিত্র কোরআন তেলোয়াতের মাধ্যমে সভার কার্যক্রম শুরু হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..