• মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ১৮২

এম এ হাকিম ভূঁইয়া

আড়াইহাজার প্রতিনিধি: ২৩ আগস্ট সৌদি আরবের মদিনায় সড়ক দুর্ঘটনায় নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে নিহতদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। তাদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে বাতাস। এমন মর্মান্তিক মৃত্যু কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না পরিবারগুলো।

কেউ ধারদেনা করে, কেউ এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে, কেউ শেষ সম্বল টুকু বিক্রি করে সাড়ে চার বছর আগে পারিজমিয়ে ছিলেন সুদূর সৌদিআরবে। এখন পরিবারগুলো ঋণের চাপে জর্জরিত। তারা সরকারের কাছে থেকে সাহায্যের দাবী জানিয়েছেন।

জানা গেছে, নিহতরা সবাই মদিনায় আল-ফাহাদ নামে একটি প্রতিষ্ঠানে পরিছন্নকর্মীর কাজ করতেন। স্থানীয় এমপি নজরুল ইসলাম বাবু বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে মানুষকে সাহায্যের কথা বললে তিনি সব সময়ই তাদের পাশে দাঁড়ান। আমি তাদেরও ব্যাপারে কথা বলব।’ ইউএনও সোহাগ হোসেন বলেন, আমরা নিহতদের পরিবারের খোঁজ খবর নিয়েছি। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে লাশগুলো দেশে আনা সম্ভব হবে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রতি পরিবারের জন্য তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা করে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করা হবে। এরই কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

 

স্থানীয় অভিবাসী কর্মী উন্নয়ন প্রোগ্রাম (ওকাপ)-এর ফিল্ড অফিসার আমিনুল ইসলাম বলেন, মরদেহ দ্রুত দেশে আনার জন্য আমরা প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করব।

প্রসঙ্গত, ২৩ আগস্ট বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টার দিকে একটি মাইক্রোবাস যোগে কর্মস্থলে যাওয়ার সময় তারা এ দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। কাজ শেষে বাসায় ফেরার সময় তাদের বহনকারী পিকআপ ভ্যানের চাকা ফেটে একটি প্রাইভেটকরের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পিকআপ ভ্যানটি উল্টে গেলে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। নিহতের মরদেহ মদিনা কিং ফাহাদ হস্পিটালের হিমঘরে রাখা হয়েছে।

নিহতরা হলেন স্থানীয় কালাপাহাড়িয়া ইউপির বদলপুর এলাকার জব্বর মিয়ার ছেলে সুরুজ মিয়া (২৫), একই এলাকার মোতালিব ব্যাপারির ছেলে নুরে আলম ওরফে নুরা মিয়া (২৩) ও খালিয়ারচর এলাকার মোকারমের ছেলে উজ্জ্বল (২২)। অপরজন স্থানীয় খাগকান্দা ইউপির চম্পক নগর এলাকার আক্রম আলীর ছেলে রাসেল (২৪)।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..