• সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ১০:৩৫ অপরাহ্ন

পলাশবাড়ীতে উপজেলা চেয়ারম্যানের নির্দেশে অবৈধভাবে  বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের লক্ষাধিক টাকার গাছ কর্তন

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ১৫১

আশরাফুল ইসলাম

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ীতে উপজেলা চেয়ারম্যানের নির্দেশে ঈদগাহ মাঠের উন্নয়নের নামে কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের জাইতর গ্রামের সুইসগেট নামক এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের অবৈধভাবে লক্ষাধিক টাকার গাছ কর্তন করে নাম মাত্র মুল্যে বিক্রি করেছে স্থানীয় একটি চক্র।

এ চক্রের মূলহোতা উপজেলা কাতুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক জানান , উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এ কে এম মোকসেদ চৌধুরী নির্দেশ মোতাবেক স্থানীয় গাছ ব্যবসায়ীদের ডেকে গাছ গুলো বিশ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের রক্ষনা বেক্ষনে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসও বিষয়টি অবগত রয়েছেন। গাছ বিক্রির টাকা জাইতর গ্রামের ঈদগাহ মাঠের উন্নয়নে ব্যবহার করা হবে। শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক এও বলেন যে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলতে পারেন। গাছ গুলো ক্রয় করেছেন কিশোরগাড়ী ইউপির গণেশপুর বাজার এলাকার নজমালের ছেলে গাছ ব্যবসায়ি রঞ্জু মিয়া।

এসব গাছ সহ বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের এ অংশের দামী গাছ গুলো এস ও মোজ্জাম্মেলের যোগসাজসে কখনো দিনে অথবা কখনো রাতে আধারে বিভিন্ন সময়ে প্রায় ৭০ হতে ৮০ দামী বড় গাছ বিক্রি করে স্থানীয় একটি চক্র। এস ও মোজ্জাম্মেল বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন কোথায় সেই গাছ ছিলো সেখানে কোন গাছ ছিলো বলে আমার জানা নাই । সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় বড় বড় গাছ গুলো কেটে মাটি দিয়ে ঢেকে দিয়েছে চক্রটি এছাড়াও এ অংশে আবারো নতুন করে কয়েক হাজার গাছ রোপন করা হয়েছে।

তবে এ বিষয়ে গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোডের নির্বাহী প্রকৌশলী সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাহার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

২৬ আগস্ট সোমবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,পলাশবাড়ী উপজেলার রাম চন্দ্রপুর গ্রামের সোবেনের ছেলে গাছকাটা শ্রমিক বিকাশ,মজিবর উদ্দিনের ছেলে মোজ্জাম্মেলসহ,রাজু মিয়া,আব্দুর রহমান, রতন,আমিরুল, রমজান,ছলিমুদ্দিন সহ গাচ কাটার কাজে নিয়োজিত শ্রমিকগণ জানান,স্থানীয় স্কুল শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক ও গাছ ব্যবসায়ি রঞ্জু মিয়ার এসব গাছ কর্তনের দেখভালের দায়িত্বে রয়েছেন। এসব শ্রমিকগণ আরো জানান, গাছ কর্তনের বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান ও এসও মোজ্জাম্মেলের নির্দেশে কর্তন করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য , দীর্ঘদিন হলো পলাশবাড়ী উপজেলার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের উপরের গাছ গুলো বিভিন্ন সময় নানা অজুহাতে কর্তন করা ছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন ইউপি রাস্তার গাছ গুলো কর্তন করা হলেও অদৃৃশ্য কারণে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিরব ভূমিকায় জনমনে নানা ধরণে গুজন চলছে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..