• রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৬:০০ অপরাহ্ন

মিথ্যা মামলায় জামিন পেল মডেল ও সাংবাদিক মোজাম্মেল

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯
  • ১৯১

 

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া/বাংলারজমিন২৪

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সাজানো মিথ্যা মামলা থেকে জামিনে মুক্তি পেল বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের সহকারী পরিচালক,সাংবাদিক ও মডেল মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া (মশাল)।

 

গত ১৯ আগস্ট সোমবার সুনামগঞ্জ অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক আব্দুল্লাহ আল-মামুন তার জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়,পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রায় ৫বছর পূর্বে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের বিশিষ্ট সুদি ব্যবসায়ী বদ মিয়ার ছেলে হাবিব সারোয়ার আজাদ মিয়া তার নিজের ছেলে শিহাব সারোয়ারকে আগুন দিয়ে পুড়ে তাহিরপুর থানার তৎকালীন এসআই জামালের সহযোগীতায় মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া (মশাল) এর বিরুদ্ধে এসিড নিয়ন্ত্রণ আইনে ১টি মিথ্যা মামলা দায়ের করে।

এই মামলায় সাংবাদিক ও মডেল মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া (মশাল) এর বিরুদ্ধে সাক্ষি প্রমান ও গঠনার সাথে কোন সম্পৃক্ততা না পাওয়ার পরও র‌্যাব-৯ এর কয়েকজন কর্মকর্তা ও কর্মচারী এসআই জামালের মতো অতি উৎসায়ী হয়ে গত ১৯.০৬.১৯ইং বুধবার ভোর ৬টায় ঢাকার রমনা থানাধীন মগবাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করে।দীর্ঘ ২মাস মিথ্যা মামলায় হাজতবাস শেষে গত সোমবার রাত ৯টায় তাকে মুক্তি দেয় আদালত।

কিন্তু সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সম্প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পোস্টার প্রকাশ্যে আগুনে পুরানোসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দিরের মূর্তি ভাংচুরের পৃথক ঘটনায় হাবিব সারোয়ার আজাদ মিয়াসহ তার আরো ২ সহযোগীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এই মামলায় আজাদ মিয়া বর্তমানে জামিনে রয়েছে। আর তার ২সহযোগী দীর্ঘদিন জেল খেটেছে।

এছাড়া সম্প্রতি ইয়াবা বিক্রির সময় ৩৫০পিছ ইয়াবাসহ আজাদ মিয়াকে হাতেনাতে জনতা আটক করে গনধৌলাই দিয়ে থানায় সোর্স করে। এবং তার ফাঁসির দাবীতে থানা ঘেরাও করে ভিক্ষোভ মিছিল করে এলাকাবাসী।

এছাড়া সীমান্ত এলাকায় চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করতে গিয়ে আজাদ মিয়া এই পর্যন্ত ৭ বার গণধৌলাইয়ের শিকার হয়েছে। থানায় ও আদালাতে তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা হয়েছে ৫টা। চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করে আজাদ মিয়া রাতারাতি হয়েছে কোটি কোটি টাকার মালিক।

এছাড়া গত ২রা আগস্ট শুক্রবার রাত ১০টায় হাবিব সারোয়ার আজাদ ও তার ছেলে শিহাব সারোয়ার পিতাপুত্র মিলে তারই আপন ছোট ভাই দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার তাহিরপুর প্রতিনিধি সাজ্জাদ হোসেন শাহকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। কিন্তু এত অপরাধ করার পরও প্রশাসন আজাদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেয় না।

এব্যাপারে সাংবাদিক ও মডেল মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া (মশাল) বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাংঙ্গালী জাতির জনক,বর্তমানে তারই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হলেন এই বাংঙ্গালী জাতির মা। তাই আমি জাতির মায়ের সহযোগীতায় প্রশাসনিক নির্যাতন ও হয়রানী থেকে মুক্তি চাই।

উল্লেখ্য,মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া(মশাল) এর গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে। তিনি একজন সাংবাদিক,মডেল,চলচ্চিত্রের সহযোগী পরিচালক ও স্ক্রিপ রাইটার। সম্প্রতি তিনি নিজের প্রযোজনা সংস্থা মশাল চলচ্চিত্র এন্ড মিডিয়ার ব্যানারে ১০টি সিনেমার গান নিয়ে নির্মাণ করেছেন মিউজিক ভিডিও। গানগুলো ইতিমধ্যে তারই নিজের ইউটিউব চ্যানেল সুঁধসসবষ অষধস এ প্রকাশিত হয়েছে। গানগুলোতে মশালের সাথে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়িকা সাদিয়া আফরিন,তানিন শোভা, অঞ্জলী সাথী ও মেহেরিমা। এছাড়া কয়েকটি টিভি চ্যানেলের জন্য সিংগেল নাটক তৈরি করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..