• মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন

নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ থানা হাজতেই আসামীর আত্মহত্যা!

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ২১২

মহিনুল ইসলাম সুজন/বাংলারজমিন২৪

নীলফামারী বিশেষ প্রতিনিধি:  নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ থানায় পুলিশ হেফাজতে আব্দুল্লাহ আল মামুন(২৩) নামে এক হাজতি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (১০ আগস্ট) দুপুরে সদর ইউনিয়নের কেসবা তেলীপাড়া এলাকার এলাকাবাসী তাকে গুর চোর সন্দেহে আটক করে ওই এলাকার সংরক্ষিত ইউপি সদস্য নার্গিস বেগমের বাড়িকে রাখা হয়।পরে তাকে পুলিশ সেই ইউপি সদস্যের বাড়ি থেকে  আটক করে থানায় এনে হাজতে রাখার পর বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সে হাজতখানার কাঁথা ছিড়ে গলায় জড়িয়ে আত্মহত্যা করেন।আত্মহননকারী উক্ত উপজেলার সদর ইউনিয়নের যদুমনি গ্রামের মৃত হুজুর আলীর ছেলে। তার আত্মহননের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) অশোক কুমার পাল।

কিশোরীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন অর রশীদ বলেন, সদর ইউনিয়নের কেসবা তেলীপাড়া এলাকার মৃত জোবান উদ্দিনের ছেলে আব্দুস কুদ্দুস দামুর গরু চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী গরুসহ আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আটক করেন। এরপর ওই এলাকার সংরক্ষিত ইউপি সদস্য নার্গিস বেগমের বাড়িকে তাকে রাখা হয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ দুপুর দুইটায় গরু সহ ওই চোরকে থানায় নিয়ে আসে।এরপর গরুচোরকে থানা হাজতে রাখা হয়। এ ব্যাপারে গরু চোর আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আসামী করে একি থানার এসআই জাহিদ  হাসান বাদী হয়ে ৪১৩ ধারায় গরু চুরি মামলা নম্বর-৭ ,তারিখ ১০/০৮/২০১৯ইং দায়ের করেন।বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে হাজতখানায় ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায় তাকে। সে কাঁথা ছিড়ে গলায় পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

নীলফামারী পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি একটি তদন্ত টিম ঘটন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..