• বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন

আড়াইহাজারে পুলিশ পরিচয়ে গণডাকাতি, ৫৫ লাখ টাকার মাল লুট

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২১ বার পঠিত

এম এ হাকিম ভূঁইয়া,আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে তিনটি স্বর্ণের দোকান ও একটি মোবাইলের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় দুস্কৃতিকারীরা প্রায় ৫৫ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে বলে ক্ষতিগ্রস্তদের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে মঙ্গলবার আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের সার্কেল ‘গ’ অঞ্চল আনিস উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে সন্দেহভাজন কাউকে আটক করতে পারেনি।

ব্যবসায়ীক এ ভবনটি স্থানীয় কালাপাহাড়িয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র থেকে মাত্র ২০ থেকে ২৫ গজের দ্রুতের মধ্যে। সংবদ্ধ এ চক্রটি উজ্জ্বল শিল্পালয় স্থাপিনকৃত (সিসি টিভি) ক্যামেরা খোলে নিয়ে গেছে।

গত সোমবার রাত ২ থেকে ৩টা পর্যন্ত কালাপাহাড়িয়া ইউপির রাধানগর বাজারের আলম মার্কেটের ওয়াজউদ্দিন প্লাজার নীচ তলাসহ পাশের একটি মার্কেটে এ ঘটনা ঘটেছে। তবে পুলিশের দাবী এটি একটি চুরির ঘটনা। এ সময় একই ভবনের দ্বিতীয় তলায় একটি কক্ষে বসবাসকারী দুই ভাড়াটিয়া মোহরআকন্দ ও কবির হোসেন নামে দুই ইটভাঙ্গা শ্রমিককে দুস্কৃতিকারীরা পুলিশ পরিচয় দিয়ে আগ্নেয়াস্ত্রের মুখে মারধর করে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে পুরো বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত উজ্জ্বল শিল্পালয়ের মালিক উজ্জ্বল জানান, আমল মার্কেটের (৩তলা) বিল্ডিংয়ের নীচ তলায় উজ্জ্বল স্বর্ণালয়। দুস্কৃতিকারীরা ১৪টি তারা কেটে ভিতরে ঢুকে। দুইটি সিন্দুকের তালা কেটে ৭৫ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার, ৩৫ কেজি রুপ্য ও নগদ ৭ লাখ টাকা লুটে নিয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমার ধারণা রাত ২ থেকে ৩টা পর্যন্ত দুস্কৃতিকারীরা দোকানের ভিতরে তান্ডব চালিয়েছে।

মা জুয়েলার্সের মালিক মোস্তফা জানান, তার দোকান থেকে দুস্কৃতিকারীরা ১৫ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার ও ৭ কেজি রুপ্য ও নগদ ৭৫ হাজার টাকা লুটে নিয়েছে। ইটভাঙ্গা শ্রমিক কবির হোসেন বলেন, প্রথমে আমাদের থাকার কক্ষের দরজা লাথি মেরে ভেঙে ফেলা হয়। পরে দৃস্কৃতিকারীরা আমাকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে শর্টগান ও পিস্তুল ঠেকিয়ে মারধর করে। বাজারের পাহাড়াদার বৃদ্ধা আব্দুল আলী বলেন, পুলিশের পোশাকধারী তিন ব্যক্তি আমাকে প্রথমে দাপটে ধরে। পরে আমি টানাচেড়া করলে আমার আঘাত করে।

এদিকে কামাল হোসেন নামে স্থানীয় এক যুবক জানান, ‘বাজারে টিটুর চায়ের দোকানটি খোলা ছিল। এ সময় তার দোকানের পাশে দাঁড়িয়ে পাঁচজন দুস্কৃতিকারী পুলিশের তদন্ত কেন্দ্রে যাতে কেউ ঢুকতে না পারেন এজন্য পাহাড়া দিয়েছে।’

আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এটি একটি চুরির ঘটনা। পাঁচজনের অধিক ব্যক্তির ওপর হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনা ঘটলে সেটি ডাকাতির ঘটনার মধ্যে পড়ে। তবে রাতে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর ভিতরে কেউ ছিল না। যারা হামলার শিকার হয়েছেন; তারা ঘটনাস্থলের বাইরের লোক ছিলেন।’ ওসি আরো বলেন, মালামাল উদ্ধার করাসহ দুস্কৃতিকারীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলছে।

Facebook Comments

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..